ঢাকা ০৪:১৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
ব্রেকিং নিউজ ::
রমাজান মাস উপলক্ষে আগামী ১২ই মার্চ থেকে ৭১ নিউজ বিডির হোম পেজে লাইভ টিভি চালু হবে। ৭১ নিউজ টিভিতে সাহরি এবং ইফতারের আগে লাইভ ইসলামী অনুষ্ঠান ও আযান সম্প্রচার করা হবে।

উড়াল সড়কে যান চলাচল শুরু, ৩ ঘণ্টায় চলল ২১১৭ গাড়ি

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৬:০১:৪৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৩৯৭ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

অবশেষ সবার জন্য খুলে গেলো ঢাকা উড়াল সড়কের একাংশ। ভোর ৬টা থেকে এর ওপর দিয়ে শুরু হয় যান চলাচল। এখন শুধু হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ফার্মগেট পর্যন্ত যাওয়া যাচ্ছে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে। এ অংশের দূরত্ব ১১ কিলোমিটার।

এতে করে বিমানবন্দর থেকে ফার্মগেট যাওয়া-আসা করতে সময় লাগবে মাত্র ১০ মিনিট। যাত্রীরা বলছেন, উড়াল সড়ক চালু হওয়ার কারণে বিমানবন্দরকেন্দ্রিক যে যানজটের ভোগান্তি ছিল তা কিছুটা হলেও কমবে। এখন ঘণ্টার পর ঘণ্টা আর বসে থাকতে হবে না গাড়িতে।

প্রথম দিনে এক্সপ্রেসওয়েটি রয়েছে ব্যক্তিগত গাড়ির দখলে। সকাল সাড়ে ৮টা থেকে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত কয়েকটি বাস দেখা গেছে উড়ালসড়কে। এছাড়া বেশকিছু কাভার্ডভ্যানও ব্যবহার করেছে উড়ালসড়কটি।

এ দিন সকাল ৬টা থেকে সকাল ৯টা ৫০ মিনিট পর্যন্ত এই উড়াল সড়কে ২ হাজার ১১৭টি গাড়ি চলাচল করেছে বলে জানিয়েছেন প্রকল্পটি পরিচালক এ এইচ এম সাখাওয়াত আক্তার। তিনি বলেন, পিক আওয়ারে (৮টা থেকে ৯টা) গাড়ির চাপ বেশি ছিল।

উড়াল সড়কে বাস কম যাবে কি না- এমন প্রশ্নে সাখাওয়াত আক্তার বলেন, কাকলি মোড়ে বাস নামতে পারবে, মহাখালী বাসস্ট্যান্ডেও নামতে পারবে।

ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে এই কর্মকর্তা বলেন, আমাদের নিজস্ব পর্যাপ্ত জনবল আছে, এছাড়াও ট্রাফিক পুলিশের সাথে সমন্বয় কাজ করা হচ্ছে।

দুর্ঘটনা কমাতে উড়ালপথটিতে নিষিদ্ধ করা হয়েছে মোটরসাইকেল ও সিএনজি অটোরিকশা। তবে একাধিক সিএনজি অটোরিকশা ও মোটরসাইকেল উড়ালসড়কে ওঠার চেষ্টা চালায়। স্বেচ্ছাসেবক ও পুলিশের কারণে র‌্যাম্প পার হতে পারেনি এসব যানের চালক।

স্বেচ্ছাসেবক নুর হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, সকাল থেকে মাত্র কয়েকটি বাস উঠেছে। প্রায় সবগুলোই সরকারি বাস। অন্য বাস ওঠেনি। সিএনজি ও মোটরসাইকেল ওঠার চেষ্টা করছে। তবে আমরা তাদের নামিয়ে দিচ্ছি। তারা হয়তো জানে না, ধীরে ধীরে অভ্যস্ত হয়ে যাবে।

বেসরকারি অফিসের কর্মচারী রাকিব হাসান বলেন, মাত্র ছয় মিনিটে এয়ারপোর্টে থেকে বনানী পৌঁছেছি। অন্যসময় এক থেকে দেড় ঘণ্টা লাগতো।

অপেক্ষায় থাকা গাড়ির চালকরা জানান, ভালো লাগছে, প্রথম এ পথে যানজট ছাড়া গাড়ি চলতে পারবো এটা ভেবেই ভালো লাগছে।

মতিঝিলে আসা এক নারী বাস যাত্রী গণমাধ্যমকে জানান, প্রতিদিন অফিসে বিমানবন্দর এলাকাতে আসতে দুই ঘণ্টা বেশি সময় নিয়ে বাসা থেকে বের হতে হতো, এখন আর সেই সময় লাগবে না। এটা ভেবেই ভালো লাগছে। অফিসে কাজের গতিও বেড়ে যাবে। এক শিশু শিক্ষার্থী জানায়, খুব কম সময়ে স্কুলে যেতে পারবো তাই ভালো লাগছে।

গাড়ির চালকরা আরও জানান, এমনও সময় গেছে দুই থেকে আড়াই বা ৩ ঘণ্টাও সময় লেগেছে এই পথে। এখন ১০ থেকে ১১ মিনিটে চলে যেতে পারছি।

এর আগে শনিবার বিকেলে রাজধানীতে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এলাকার কাওলা থেকে ফার্মগেট পর্যন্ত সাড়ে ১১ কিলোমিটার পথ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

নিউজটি শেয়ার করুন

উড়াল সড়কে যান চলাচল শুরু, ৩ ঘণ্টায় চলল ২১১৭ গাড়ি

আপডেট সময় : ০৬:০১:৪৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩

অবশেষ সবার জন্য খুলে গেলো ঢাকা উড়াল সড়কের একাংশ। ভোর ৬টা থেকে এর ওপর দিয়ে শুরু হয় যান চলাচল। এখন শুধু হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ফার্মগেট পর্যন্ত যাওয়া যাচ্ছে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে দিয়ে। এ অংশের দূরত্ব ১১ কিলোমিটার।

এতে করে বিমানবন্দর থেকে ফার্মগেট যাওয়া-আসা করতে সময় লাগবে মাত্র ১০ মিনিট। যাত্রীরা বলছেন, উড়াল সড়ক চালু হওয়ার কারণে বিমানবন্দরকেন্দ্রিক যে যানজটের ভোগান্তি ছিল তা কিছুটা হলেও কমবে। এখন ঘণ্টার পর ঘণ্টা আর বসে থাকতে হবে না গাড়িতে।

প্রথম দিনে এক্সপ্রেসওয়েটি রয়েছে ব্যক্তিগত গাড়ির দখলে। সকাল সাড়ে ৮টা থেকে সাড়ে ৯টা পর্যন্ত কয়েকটি বাস দেখা গেছে উড়ালসড়কে। এছাড়া বেশকিছু কাভার্ডভ্যানও ব্যবহার করেছে উড়ালসড়কটি।

এ দিন সকাল ৬টা থেকে সকাল ৯টা ৫০ মিনিট পর্যন্ত এই উড়াল সড়কে ২ হাজার ১১৭টি গাড়ি চলাচল করেছে বলে জানিয়েছেন প্রকল্পটি পরিচালক এ এইচ এম সাখাওয়াত আক্তার। তিনি বলেন, পিক আওয়ারে (৮টা থেকে ৯টা) গাড়ির চাপ বেশি ছিল।

উড়াল সড়কে বাস কম যাবে কি না- এমন প্রশ্নে সাখাওয়াত আক্তার বলেন, কাকলি মোড়ে বাস নামতে পারবে, মহাখালী বাসস্ট্যান্ডেও নামতে পারবে।

ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে এই কর্মকর্তা বলেন, আমাদের নিজস্ব পর্যাপ্ত জনবল আছে, এছাড়াও ট্রাফিক পুলিশের সাথে সমন্বয় কাজ করা হচ্ছে।

দুর্ঘটনা কমাতে উড়ালপথটিতে নিষিদ্ধ করা হয়েছে মোটরসাইকেল ও সিএনজি অটোরিকশা। তবে একাধিক সিএনজি অটোরিকশা ও মোটরসাইকেল উড়ালসড়কে ওঠার চেষ্টা চালায়। স্বেচ্ছাসেবক ও পুলিশের কারণে র‌্যাম্প পার হতে পারেনি এসব যানের চালক।

স্বেচ্ছাসেবক নুর হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, সকাল থেকে মাত্র কয়েকটি বাস উঠেছে। প্রায় সবগুলোই সরকারি বাস। অন্য বাস ওঠেনি। সিএনজি ও মোটরসাইকেল ওঠার চেষ্টা করছে। তবে আমরা তাদের নামিয়ে দিচ্ছি। তারা হয়তো জানে না, ধীরে ধীরে অভ্যস্ত হয়ে যাবে।

বেসরকারি অফিসের কর্মচারী রাকিব হাসান বলেন, মাত্র ছয় মিনিটে এয়ারপোর্টে থেকে বনানী পৌঁছেছি। অন্যসময় এক থেকে দেড় ঘণ্টা লাগতো।

অপেক্ষায় থাকা গাড়ির চালকরা জানান, ভালো লাগছে, প্রথম এ পথে যানজট ছাড়া গাড়ি চলতে পারবো এটা ভেবেই ভালো লাগছে।

মতিঝিলে আসা এক নারী বাস যাত্রী গণমাধ্যমকে জানান, প্রতিদিন অফিসে বিমানবন্দর এলাকাতে আসতে দুই ঘণ্টা বেশি সময় নিয়ে বাসা থেকে বের হতে হতো, এখন আর সেই সময় লাগবে না। এটা ভেবেই ভালো লাগছে। অফিসে কাজের গতিও বেড়ে যাবে। এক শিশু শিক্ষার্থী জানায়, খুব কম সময়ে স্কুলে যেতে পারবো তাই ভালো লাগছে।

গাড়ির চালকরা আরও জানান, এমনও সময় গেছে দুই থেকে আড়াই বা ৩ ঘণ্টাও সময় লেগেছে এই পথে। এখন ১০ থেকে ১১ মিনিটে চলে যেতে পারছি।

এর আগে শনিবার বিকেলে রাজধানীতে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর এলাকার কাওলা থেকে ফার্মগেট পর্যন্ত সাড়ে ১১ কিলোমিটার পথ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।