০৫:১১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নাশকতার মামলায় ফখরুল-রিজভীসহ ৮ জনের বিচার শুরু

১১ বছর আগে রাজধানীর পল্টন মডেল থানার নাশকতার এক মামলায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও দলটির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভীসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। এর ফলে মামলার বিচার আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হলো।

ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন মাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেনের আদালত আজ রোববার (৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে আসামিদের অব্যাহতির আবেদন নাকচ করে অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন। একই সঙ্গে আগামী ২০ সেপ্টেম্বর সাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ ধার্য করেন আদালত।

বিচার শুরু হওয়া অপর আসামিরা হলেন, যুবদল নেতা আজিজুল বারি হেলাল, সাইফুল নিরব, মোয়াজ্জেম হোসেন ওরফে বাবু, কাজী রেজাউল হক বাবু ওরফে জিম বাবু, খন্দকার এনামুল হক এনাম ও জামায়াত নেতা শফিকুল ইসলাম ওরফে মাসুদ।

আসামিদের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার, জয়নাল আবেদীন মেসবাহ। রাষ্ট্রপক্ষে মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জগঠনের প্রার্থণা করেন।

উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন। আসামিপক্ষের আইনজীবী হান্নান ভূঁইয়া এসব তথ্য জানান।

জানা যায়, ২০১২ সালের ৯ ডিসেম্বর ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পরিবহন বিভাগের চালক মো. আয়নাল প্রতিদিনের মতো সন্ধ্যা ৭টার দিকে মিন্টু রোডের ইস্কাটন থেকে ময়লা আনার জন্য গাড়ি চালিয়ে মাতুয়াইল ল্যান্ডফিল্ড যাচ্ছিলেন। কাকরাইল থেকে পল্টন বিজয়নগরের দিকে আসলে মির্জা ফখরুল ইসলাম ও রুহুল কবির রিজভীর নেতৃত্বে ২০০ থেকে ২৫০ জনের একটি মিছিল বের হয়। তারা গাড়ি থামিয়ে চালকের সহকারীকে মারধর করে এবং ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। তারা গাড়িও ভাংচুর করে। এতে দুই লাখ টাকার ক্ষতি হয়।

এ ঘটনায় ওই দিনই তিনি পল্টন থানায় মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করে মতিঝিল জোনাল টিমের সাব-ইন্সপেক্টর আনোয়ার হোসেন ২০১৭ সালের ২৩ অক্টোবর ৯ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। চার্জশিট দাখিল হওয়ার পর মারা গেছেন শফিউল বারী বাবু।

নাশকতার মামলায় ফখরুল-রিজভীসহ ৮ জনের বিচার শুরু

আপডেট : ০৭:২৭:২১ পূর্বাহ্ন, রোববার, ৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩

১১ বছর আগে রাজধানীর পল্টন মডেল থানার নাশকতার এক মামলায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও দলটির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভীসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। এর ফলে মামলার বিচার আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হলো।

ঢাকার অতিরিক্ত মেট্রোপলিটন মাজিস্ট্রেট তোফাজ্জল হোসেনের আদালত আজ রোববার (৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে আসামিদের অব্যাহতির আবেদন নাকচ করে অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন। একই সঙ্গে আগামী ২০ সেপ্টেম্বর সাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ ধার্য করেন আদালত।

বিচার শুরু হওয়া অপর আসামিরা হলেন, যুবদল নেতা আজিজুল বারি হেলাল, সাইফুল নিরব, মোয়াজ্জেম হোসেন ওরফে বাবু, কাজী রেজাউল হক বাবু ওরফে জিম বাবু, খন্দকার এনামুল হক এনাম ও জামায়াত নেতা শফিকুল ইসলাম ওরফে মাসুদ।

আসামিদের পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার, জয়নাল আবেদীন মেসবাহ। রাষ্ট্রপক্ষে মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল্লাহ আবু আসামিদের বিরুদ্ধে চার্জগঠনের প্রার্থণা করেন।

উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের আদেশ দেন। আসামিপক্ষের আইনজীবী হান্নান ভূঁইয়া এসব তথ্য জানান।

জানা যায়, ২০১২ সালের ৯ ডিসেম্বর ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের পরিবহন বিভাগের চালক মো. আয়নাল প্রতিদিনের মতো সন্ধ্যা ৭টার দিকে মিন্টু রোডের ইস্কাটন থেকে ময়লা আনার জন্য গাড়ি চালিয়ে মাতুয়াইল ল্যান্ডফিল্ড যাচ্ছিলেন। কাকরাইল থেকে পল্টন বিজয়নগরের দিকে আসলে মির্জা ফখরুল ইসলাম ও রুহুল কবির রিজভীর নেতৃত্বে ২০০ থেকে ২৫০ জনের একটি মিছিল বের হয়। তারা গাড়ি থামিয়ে চালকের সহকারীকে মারধর করে এবং ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। তারা গাড়িও ভাংচুর করে। এতে দুই লাখ টাকার ক্ষতি হয়।

এ ঘটনায় ওই দিনই তিনি পল্টন থানায় মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করে মতিঝিল জোনাল টিমের সাব-ইন্সপেক্টর আনোয়ার হোসেন ২০১৭ সালের ২৩ অক্টোবর ৯ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। চার্জশিট দাখিল হওয়ার পর মারা গেছেন শফিউল বারী বাবু।