ঢাকা ০৫:২২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

১৩ অক্টোবর টঙ্গীতে শুরু হচ্ছে জোড় ইজতেমা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৭:৪৮:২৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৪২৯ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ তীরে মুসলিম জাহানের দ্বিতীয় বৃহত্তম গণ-জমায়েত বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতির অংশ হিসাবে আগামী ১৩-১৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে তাবলীগ জামাতের মাওলানা সাদ অনুসারীদের ৫ দিনব্যাপী জোড় ইজতেমা। এ ব্যাপারে গাজীপুর মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে জোড় আয়োজনের জন্য অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এর আগে, কাকরাইল জামে মসজিদ মারকাজের আহলে শূরার পক্ষে আবেদন করেন সৈয়দ ওয়াসিফ ইসলাম।

গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনার স্বাক্ষরিত অনুমতি পত্রে বলা হয়েছে, নিজামুদ্দিন বিশ্ব মার্কাজের অনুসারী তাবলীগের শুরার পক্ষে কাকরাইল মসজিদ, ঢাকার আবেদনের প্রেক্ষিতে টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে আগামী ১৩-১৭ অক্টোবর ৫ দিনব্যাপী জোড় ইজতেমা অনুষ্ঠানের অনুমতি প্রদান করা হলো। অনুমতির অনুলিপি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, স্থানীয় সংসদ সদস্য, স্বরাষ্ট্র সচিবসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তর ও গোয়েন্দা সংস্থাকে দেওয়া হয়েছে।

তাবলীগ জামাতের মাওলানা সাদ অনুসারী ও মিডিয়া সমন্বয়ক মোহাম্মদ সায়েম জানান, “প্রতি বছর বিশ্ব ইজতেমার আয়োজনের প্রস্ততির জন্য ইজতেমার নির্ধারিত সময়ের আগে দাওয়াত ও তাবলীগের মেহনত সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা এবং টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমার সফলতার জন্য পুরানা তাবলীগ সাথীদের অংশগ্রহণে পাঁচ দিনের জোড় আয়োজন করা হয়ে থাকে। জোড় এ মূলত সারাদেশের মুরুব্বি ও পুরানা সাথীরা অংশগ্রহণ করেন। আগামী ১৩ থেকে ১৭ অক্টোবর এ ৫ দিন সাদ অনুসারীদের জোড় অনুষ্ঠিত হবে”।

“জোড় আয়োজনের জন্য বিশ্ব তাবলীগের নিজামুদ্দিন বিশ্ব মার্কাজের (মাওলানা সাদ) অনুসারী অংশের আহলে শুরা সদস্য সৈয়দ ওয়াসিফ ইসলাম গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনারের কাছে আবেদন করেছিলেন। রোববার আমরা অনুমতি পেয়েছি”- বলেন মোহাম্মদ সায়েম।

গত কয়েক বছর ধরে এ জোড় ইজতেমা ময়দানের বাইরে আয়োজন করা হতো। এবার ময়দানে আয়োজনের অনুমতি দেওয়ায় তিনি সরকারের নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন, এবারের জোড়ে লক্ষাধিক তাবলীগের পুরানা সাথী অংশ নিতে আসবেন। তাদের মধ্যে ভারতের মেহমানও থাকবেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ইজতেমায় বিশ্ব তাবলীগের আমীর মাওলানা সাদ এর একটি বক্তব্যকে কেন্দ্র করে তাবলীগ জামাতের মুরুব্বিরা মাওলানা সাদ পন্থী ও মাওলানা জোবায়ের পন্থী এ দুইভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েন। এর ফলে গত কয়েক বছর ধরে বিশ্ব ইজতেমা দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে।

সাধারণত প্রতি বছর জানুয়ারি মাসে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু আগামী ২০২৪ সালের বিশ্ব ইজতেমার তারিখ এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। তবে, জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরে তারিখ নির্ধারণ করা হবে।

এ বিষয়ে গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনার মাহবুব আলম বলেন, “প্রতি বছরই জোড় আয়োজন করা হয়ে থাকে। একপক্ষ আবেদন করেছে, আমরা সবদিক বিবেচনায় নিয়ে অনুমতি দিয়েছি। সামনে জাতীয় নির্বাচন এজন্য আমরাও চাই এ ধরনের বড় জমায়েত আগেই শেষ হয়ে যাক। আমরা তাদের সব রকম সহায়তা দিব। আশা করি শান্তিপূর্ণভাবে জোড় অনুষ্ঠান সম্পন্ন হবে”।

নিউজটি শেয়ার করুন

১৩ অক্টোবর টঙ্গীতে শুরু হচ্ছে জোড় ইজতেমা

আপডেট সময় : ০৭:৪৮:২৫ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩

গাজীপুরের টঙ্গীর তুরাগ তীরে মুসলিম জাহানের দ্বিতীয় বৃহত্তম গণ-জমায়েত বিশ্ব ইজতেমার প্রস্তুতির অংশ হিসাবে আগামী ১৩-১৭ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে তাবলীগ জামাতের মাওলানা সাদ অনুসারীদের ৫ দিনব্যাপী জোড় ইজতেমা। এ ব্যাপারে গাজীপুর মহানগর পুলিশের পক্ষ থেকে জোড় আয়োজনের জন্য অনুমতি দেওয়া হয়েছে। এর আগে, কাকরাইল জামে মসজিদ মারকাজের আহলে শূরার পক্ষে আবেদন করেন সৈয়দ ওয়াসিফ ইসলাম।

গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনার স্বাক্ষরিত অনুমতি পত্রে বলা হয়েছে, নিজামুদ্দিন বিশ্ব মার্কাজের অনুসারী তাবলীগের শুরার পক্ষে কাকরাইল মসজিদ, ঢাকার আবেদনের প্রেক্ষিতে টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে আগামী ১৩-১৭ অক্টোবর ৫ দিনব্যাপী জোড় ইজতেমা অনুষ্ঠানের অনুমতি প্রদান করা হলো। অনুমতির অনুলিপি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী, স্থানীয় সংসদ সদস্য, স্বরাষ্ট্র সচিবসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তর ও গোয়েন্দা সংস্থাকে দেওয়া হয়েছে।

তাবলীগ জামাতের মাওলানা সাদ অনুসারী ও মিডিয়া সমন্বয়ক মোহাম্মদ সায়েম জানান, “প্রতি বছর বিশ্ব ইজতেমার আয়োজনের প্রস্ততির জন্য ইজতেমার নির্ধারিত সময়ের আগে দাওয়াত ও তাবলীগের মেহনত সুষ্ঠুভাবে পরিচালনা এবং টঙ্গী বিশ্ব ইজতেমার সফলতার জন্য পুরানা তাবলীগ সাথীদের অংশগ্রহণে পাঁচ দিনের জোড় আয়োজন করা হয়ে থাকে। জোড় এ মূলত সারাদেশের মুরুব্বি ও পুরানা সাথীরা অংশগ্রহণ করেন। আগামী ১৩ থেকে ১৭ অক্টোবর এ ৫ দিন সাদ অনুসারীদের জোড় অনুষ্ঠিত হবে”।

“জোড় আয়োজনের জন্য বিশ্ব তাবলীগের নিজামুদ্দিন বিশ্ব মার্কাজের (মাওলানা সাদ) অনুসারী অংশের আহলে শুরা সদস্য সৈয়দ ওয়াসিফ ইসলাম গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনারের কাছে আবেদন করেছিলেন। রোববার আমরা অনুমতি পেয়েছি”- বলেন মোহাম্মদ সায়েম।

গত কয়েক বছর ধরে এ জোড় ইজতেমা ময়দানের বাইরে আয়োজন করা হতো। এবার ময়দানে আয়োজনের অনুমতি দেওয়ায় তিনি সরকারের নিকট কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন, এবারের জোড়ে লক্ষাধিক তাবলীগের পুরানা সাথী অংশ নিতে আসবেন। তাদের মধ্যে ভারতের মেহমানও থাকবেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ইজতেমায় বিশ্ব তাবলীগের আমীর মাওলানা সাদ এর একটি বক্তব্যকে কেন্দ্র করে তাবলীগ জামাতের মুরুব্বিরা মাওলানা সাদ পন্থী ও মাওলানা জোবায়ের পন্থী এ দুইভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েন। এর ফলে গত কয়েক বছর ধরে বিশ্ব ইজতেমা দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে।

সাধারণত প্রতি বছর জানুয়ারি মাসে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু আগামী ২০২৪ সালের বিশ্ব ইজতেমার তারিখ এখনো নির্ধারণ করা হয়নি। তবে, জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পরে তারিখ নির্ধারণ করা হবে।

এ বিষয়ে গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনার মাহবুব আলম বলেন, “প্রতি বছরই জোড় আয়োজন করা হয়ে থাকে। একপক্ষ আবেদন করেছে, আমরা সবদিক বিবেচনায় নিয়ে অনুমতি দিয়েছি। সামনে জাতীয় নির্বাচন এজন্য আমরাও চাই এ ধরনের বড় জমায়েত আগেই শেষ হয়ে যাক। আমরা তাদের সব রকম সহায়তা দিব। আশা করি শান্তিপূর্ণভাবে জোড় অনুষ্ঠান সম্পন্ন হবে”।