ঢাকা ০৪:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

জমজমের পানি নিয়ে নতুন নির্দেশনা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৬:৪৩:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৪৮২ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

প্রতিবছর সৌদি আরবে পবিত্র ওমরাহ পালন করতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে লাখ লাখ মুসল্লি জড়ো হন। মুসলমানদের দুই পবিত্র মসজিদ মক্কার মসজিদুল হারাম ও মদিনার মসজিদে নববীতে জমজমের পানি পান করার ক্ষেত্রে চারটি নতুন নির্দেশনা দিয়েছে দেশটির হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়।

মঙ্গলবার (৫ সেপ্টেম্বর) গালফ নিউজের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, সৌদি সরকারের নির্দেশনায় জমজমের পানি পান করার সময় মুসল্লিদের মধ্যে পরোপকারের মনোভাব দেখানো, ধাক্কাধাক্কি না করে অন্যকে সহযোগিতা করা এবং পানি পান করার সময় বয়োজ্যেষ্ঠদের আগে সুযোগ দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে, জমজমের পানি পান করার পর ব্যবহৃত কাপগুলো নির্ধারিত স্থানে ফেলতে হবে। আর পান করার সময় সতর্ক থাকতে হবে যেন পানি মেঝেতে না পড়ে, যাতে করে পরিবেশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা যায়।

মুসলমানদের কাছে জমজমের পানির বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। অন্য দেশ থেকে যারা সৌদি আরবে ওমরাহ ও হজ পালন করতে যান, তারা দেশে ফেরার সময় প্রায়ই জমজমের পানি কিনে নিয়ে যান। এই পানি সাধারণত তারা আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবকে উপহার দিয়ে থাকেন। অনেকেই বিশ্বাস করেন, জমজমের পানির বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। এই পানি পান করলে অনেক সময় বড় ধরনের রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

বর্তমানে নুসুক অ্যাপের মাধ্যমেই ওমরাহ ও হজযাত্রীরা নির্দিষ্ট পরিমাণ জমজমের পানির জন্য বুকিং দিতে পারেন। সম্প্রতি বাংলাদেশিদের জন্যও নুসুক অ্যাপটি উন্মুক্ত করেছে সৌদি আরবের ওমরাহ ও হজ মন্ত্রণালয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

জমজমের পানি নিয়ে নতুন নির্দেশনা

আপডেট সময় : ০৬:৪৩:৫৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩

প্রতিবছর সৌদি আরবে পবিত্র ওমরাহ পালন করতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে লাখ লাখ মুসল্লি জড়ো হন। মুসলমানদের দুই পবিত্র মসজিদ মক্কার মসজিদুল হারাম ও মদিনার মসজিদে নববীতে জমজমের পানি পান করার ক্ষেত্রে চারটি নতুন নির্দেশনা দিয়েছে দেশটির হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়।

মঙ্গলবার (৫ সেপ্টেম্বর) গালফ নিউজের প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, সৌদি সরকারের নির্দেশনায় জমজমের পানি পান করার সময় মুসল্লিদের মধ্যে পরোপকারের মনোভাব দেখানো, ধাক্কাধাক্কি না করে অন্যকে সহযোগিতা করা এবং পানি পান করার সময় বয়োজ্যেষ্ঠদের আগে সুযোগ দেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে, জমজমের পানি পান করার পর ব্যবহৃত কাপগুলো নির্ধারিত স্থানে ফেলতে হবে। আর পান করার সময় সতর্ক থাকতে হবে যেন পানি মেঝেতে না পড়ে, যাতে করে পরিবেশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা যায়।

মুসলমানদের কাছে জমজমের পানির বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। অন্য দেশ থেকে যারা সৌদি আরবে ওমরাহ ও হজ পালন করতে যান, তারা দেশে ফেরার সময় প্রায়ই জমজমের পানি কিনে নিয়ে যান। এই পানি সাধারণত তারা আত্মীয়-স্বজন ও বন্ধু-বান্ধবকে উপহার দিয়ে থাকেন। অনেকেই বিশ্বাস করেন, জমজমের পানির বিশেষ গুরুত্ব রয়েছে। এই পানি পান করলে অনেক সময় বড় ধরনের রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

বর্তমানে নুসুক অ্যাপের মাধ্যমেই ওমরাহ ও হজযাত্রীরা নির্দিষ্ট পরিমাণ জমজমের পানির জন্য বুকিং দিতে পারেন। সম্প্রতি বাংলাদেশিদের জন্যও নুসুক অ্যাপটি উন্মুক্ত করেছে সৌদি আরবের ওমরাহ ও হজ মন্ত্রণালয়।