ঢাকা ১২:১৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

পাঁচ দিনেই ডেঙ্গু শনাক্ত ১১ হাজার ছাড়িয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৬:৩৬:০৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৩৮০ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আবারও বাড়ছে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা। সেপ্টেম্বরের প্রথম পাঁচ দিনেই শনাক্ত ছাড়িয়েছে ১১ হাজার। একদিনে আরও ১১ জনসহ এই কয়েক দিনে মারা গেছেন ৬৪ জন। রাজধানীর হাসপাতালগুলোতে আবারও দেখা দিচ্ছে শয্যা সংকট।

ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহেদ মালেক বলেছেন, ডেঙ্গু রোগী কমেনি বরং বেড়েছে। সার্বিক পরিস্থিতি এখনও উদ্বেগজনক। ডেঙ্গু মহামারির সবচেয়ে ভয়াবহ বছর পার করছে দেশ। সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষ এবার আক্রান্ত হয়েছে। রেকর্ড হয়েছে প্রাণহানির ক্ষেত্রেও। আগস্টের মাঝামাঝি আক্রান্ত ও মৃত্যুহার কিছুটা কমলেও শেষ সপ্তাহ থেকে আবারও তা বাড়ছে।

এক সপ্তাহে ডেঙ্গু আক্রান্ত ছাড়িয়েছে ১৫ হাজার। যার মধ্যে সেপ্টেম্বরের পাঁচ দিনেই রোগী ১১ হাজারের বেশি। রাজধানীর হাসপাতালগুলোতে আবারও দেখা দিয়েছে শয্যা সংকট।

মুগদা হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. নিয়াতুজ্জামান বলেন, এই মুহূর্তে রাজধানীর সবচেয়ে বেশি ১৭ শতাংশ রোগী যাত্রাবাড়ীতে। আর প্রায় ১৩ শতাংশ সুবজবাগে। সবচেয়ে বেশি রোগী চিকিৎসা নিচ্ছে ঢাকা মেডিকেলে। রোগী বেড়েছে মুগদা হাসপাতালেও।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডেঙ্গু চিকিৎসা নিয়ে জানান, ডেঙ্গু চিকিৎসায় ফ্লুইড ম্যানেজমেন্টের জন্য অ্যাপস চালু করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। চিকিৎসা সেবায় কোনো ঘাটতি নেই, তবে মশা না কমলে রোগীও কমবে না। এ জন্য মশা নিধনে জড়িতদের আরও দায়িত্বশীল হওয়ার আহবান তাঁর।

দেশের কোনো সরকারি হাসপাতালে স্যালাইন সংকট নেই জানিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, প্রয়োজনে বাইরে থেকে আমদানি করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

পাঁচ দিনেই ডেঙ্গু শনাক্ত ১১ হাজার ছাড়িয়েছে

আপডেট সময় : ০৬:৩৬:০৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩

আবারও বাড়ছে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা। সেপ্টেম্বরের প্রথম পাঁচ দিনেই শনাক্ত ছাড়িয়েছে ১১ হাজার। একদিনে আরও ১১ জনসহ এই কয়েক দিনে মারা গেছেন ৬৪ জন। রাজধানীর হাসপাতালগুলোতে আবারও দেখা দিচ্ছে শয্যা সংকট।

ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহেদ মালেক বলেছেন, ডেঙ্গু রোগী কমেনি বরং বেড়েছে। সার্বিক পরিস্থিতি এখনও উদ্বেগজনক। ডেঙ্গু মহামারির সবচেয়ে ভয়াবহ বছর পার করছে দেশ। সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষ এবার আক্রান্ত হয়েছে। রেকর্ড হয়েছে প্রাণহানির ক্ষেত্রেও। আগস্টের মাঝামাঝি আক্রান্ত ও মৃত্যুহার কিছুটা কমলেও শেষ সপ্তাহ থেকে আবারও তা বাড়ছে।

এক সপ্তাহে ডেঙ্গু আক্রান্ত ছাড়িয়েছে ১৫ হাজার। যার মধ্যে সেপ্টেম্বরের পাঁচ দিনেই রোগী ১১ হাজারের বেশি। রাজধানীর হাসপাতালগুলোতে আবারও দেখা দিয়েছে শয্যা সংকট।

মুগদা হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. নিয়াতুজ্জামান বলেন, এই মুহূর্তে রাজধানীর সবচেয়ে বেশি ১৭ শতাংশ রোগী যাত্রাবাড়ীতে। আর প্রায় ১৩ শতাংশ সুবজবাগে। সবচেয়ে বেশি রোগী চিকিৎসা নিচ্ছে ঢাকা মেডিকেলে। রোগী বেড়েছে মুগদা হাসপাতালেও।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডেঙ্গু চিকিৎসা নিয়ে জানান, ডেঙ্গু চিকিৎসায় ফ্লুইড ম্যানেজমেন্টের জন্য অ্যাপস চালু করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। চিকিৎসা সেবায় কোনো ঘাটতি নেই, তবে মশা না কমলে রোগীও কমবে না। এ জন্য মশা নিধনে জড়িতদের আরও দায়িত্বশীল হওয়ার আহবান তাঁর।

দেশের কোনো সরকারি হাসপাতালে স্যালাইন সংকট নেই জানিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, প্রয়োজনে বাইরে থেকে আমদানি করা হবে।