ঢাকা ০৮:১৯ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
ব্রেকিং নিউজ ::
রমাজান মাস উপলক্ষে আগামী ১২ই মার্চ থেকে ৭১ নিউজ বিডির হোম পেজে লাইভ টিভি চালু হবে। ৭১ নিউজ টিভিতে সাহরি এবং ইফতারের আগে লাইভ ইসলামী অনুষ্ঠান ও আযান সম্প্রচার করা হবে।

রাশিয়াকে অস্ত্র দিলে কড়া মূল্য দিতে হবে উত্তর কোরিয়াকে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৭:০৩:১০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৪১২ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

রাশিয়ার সঙ্গে অস্ত্র চুক্তি করতে যাচ্ছে উত্তর কোরিয়া। আর এতে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। হোয়াইট হাউসের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা হুশিয়ারি দিয়ে বলেছে, উত্তর কোরিয়া যদি রাশিয়াকে অস্ত্র সরবরাহ করে তবে তাকে কড়া মূল্য চুকাতে হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান গতকাল মঙ্গলবার সাংবাদিকদের বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বাস করে, উত্তর কোরিয়া ও রাশিয়ার মধ্যে অস্ত্র আলোচনা সক্রিয়ভাবে অগ্রসর হচ্ছে। একটি আধুনিক সার্বভৌম রাষ্ট্রের অন্তর্গত অঞ্চল জয় করার চেষ্টায় রাশিয়াকে যদি উত্তর কোরিয়া অস্ত্র দিয়ে সহায়তা করে, তবে তার প্রতিক্রিয়া মোটেও ভালো হবে না।

এর আগে গত সোমবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা বলেন, অস্ত্র চুক্তি নিয়ে আলোচনা করতে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে দেখা করতে পারেন বলে ধারনা করা হচ্ছে। কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, ক্রেমলিন যুক্তরাষ্ট্রের এ দাবির বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছে। তারা শুধু বলেছে, দুই নেতার মধ্যে সম্ভাব্য সরাসরি আলোচনার ব্যাপারে কিছু বলার নেই।

সম্প্রতি রাশিয়ার সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক প্রকাশ্যে আসতে শুরু করেছে। গত জুলাইয়ে রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু উত্তর কোরিয়া সফর করেন এবং কিমের সঙ্গে দেখা করেন। কিম এবং পুতিনও গত মাসে তাদের দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক জোরদার করার অঙ্গীকার করে চিঠি বিনিময় করেছেন।

গতকাল মঙ্গলবার মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র বেদান্ত প্যাটেলও উত্তর কোরিয়াকে রাশিয়াকে অস্ত্র সরবরাহের ব্যাপারে সতর্ক করেছেন। তিনি বলেন, রাশিয়া অস্ত্রের জন্য উত্তর কোরিয়ার মুখাপেক্ষী হয়েছে। এটি রাশিয়ার ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কার্যকারিতাকেই প্রমাণ করে। প্যাটেল আরও বলেন, আমাদের নিষেধাজ্ঞা ও রপ্তানি নিয়ন্ত্রণের কারণে রাশিয়াকে মরিয়া হয়ে বিশ্বজুড়ে অস্ত্র অনুসন্ধান করতে হচ্ছে।

মস্কোকে অস্ত্র সরবরাহ করলে পিয়ংইয়ংকে কী ধরনের মূল্য চুকাতে হবে—এমন প্রশ্নের জবাবে প্যাটেল বিস্তারিত কিছু বলেননি। তিনি বলেন, আমাদের অংশীদারদের সঙ্গে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

রাশিয়াকে অস্ত্র দিলে কড়া মূল্য দিতে হবে উত্তর কোরিয়াকে

আপডেট সময় : ০৭:০৩:১০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ সেপ্টেম্বর ২০২৩

রাশিয়ার সঙ্গে অস্ত্র চুক্তি করতে যাচ্ছে উত্তর কোরিয়া। আর এতে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। হোয়াইট হাউসের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা হুশিয়ারি দিয়ে বলেছে, উত্তর কোরিয়া যদি রাশিয়াকে অস্ত্র সরবরাহ করে তবে তাকে কড়া মূল্য চুকাতে হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জ্যাক সুলিভান গতকাল মঙ্গলবার সাংবাদিকদের বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বাস করে, উত্তর কোরিয়া ও রাশিয়ার মধ্যে অস্ত্র আলোচনা সক্রিয়ভাবে অগ্রসর হচ্ছে। একটি আধুনিক সার্বভৌম রাষ্ট্রের অন্তর্গত অঞ্চল জয় করার চেষ্টায় রাশিয়াকে যদি উত্তর কোরিয়া অস্ত্র দিয়ে সহায়তা করে, তবে তার প্রতিক্রিয়া মোটেও ভালো হবে না।

এর আগে গত সোমবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা বলেন, অস্ত্র চুক্তি নিয়ে আলোচনা করতে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে দেখা করতে পারেন বলে ধারনা করা হচ্ছে। কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, ক্রেমলিন যুক্তরাষ্ট্রের এ দাবির বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকার করেছে। তারা শুধু বলেছে, দুই নেতার মধ্যে সম্ভাব্য সরাসরি আলোচনার ব্যাপারে কিছু বলার নেই।

সম্প্রতি রাশিয়ার সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক প্রকাশ্যে আসতে শুরু করেছে। গত জুলাইয়ে রাশিয়ার প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু উত্তর কোরিয়া সফর করেন এবং কিমের সঙ্গে দেখা করেন। কিম এবং পুতিনও গত মাসে তাদের দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক জোরদার করার অঙ্গীকার করে চিঠি বিনিময় করেছেন।

গতকাল মঙ্গলবার মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র বেদান্ত প্যাটেলও উত্তর কোরিয়াকে রাশিয়াকে অস্ত্র সরবরাহের ব্যাপারে সতর্ক করেছেন। তিনি বলেন, রাশিয়া অস্ত্রের জন্য উত্তর কোরিয়ার মুখাপেক্ষী হয়েছে। এটি রাশিয়ার ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞার কার্যকারিতাকেই প্রমাণ করে। প্যাটেল আরও বলেন, আমাদের নিষেধাজ্ঞা ও রপ্তানি নিয়ন্ত্রণের কারণে রাশিয়াকে মরিয়া হয়ে বিশ্বজুড়ে অস্ত্র অনুসন্ধান করতে হচ্ছে।

মস্কোকে অস্ত্র সরবরাহ করলে পিয়ংইয়ংকে কী ধরনের মূল্য চুকাতে হবে—এমন প্রশ্নের জবাবে প্যাটেল বিস্তারিত কিছু বলেননি। তিনি বলেন, আমাদের অংশীদারদের সঙ্গে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।