ঢাকা ১২:০৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

বিচারপতিরাও রাজনীতির মাঠে নেমে পড়েছেন : জয়নুল আবেদীন

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় : ০১:২৭:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৪৫৩ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

‘সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতিরাও আজ রাজনীতির মাঠে নেমে পড়েছেন। আমরা ইতোমধ্যে এর প্রতিবাদ করেছি’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও ইউনাইটেড ল ইয়ার্স ফ্রন্টের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। আজ বৃহস্পতিবার (৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নারায়ণগঞ্জে আইনজীবীদের পদযাত্রা শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ইউনাইটেড ল ইয়ার্স ফ্রন্ট জেলা ইউনিটের উদ্যোগে লুণ্ঠিত ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবিতে আইনজীবীদের এ পদযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়।

অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘বিচারপতিরা যদি রাজনীতি করেন তাহলে তাঁরা যে শপথ করে এসেছেন, তা ভঙ্গ হয়। তাঁদের রাজনীতির মাঠে আসতে হলে আগে পদত্যাগ করে তারপর রাজনীতি করতে হবে। বিএনপির আইনজীবীরা এর প্রতিবাদ করায় সাতজনের বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে আদালত অবমাননার পিটিশন দায়ের করা হয়েছে। আমরা বলেছি, এই আদালত অবমাননার পিটিশন আইনগতভাবে আমরা লড়ব ইনশা আল্লাহ।’

জয়নুল আবেদীন আরও বলেন, ‘আপনারা জানেন, আমাদের ৪০ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা পেন্ডিং আছে। উচ্চ আদালতকে বাদ দিয়ে নিম্ন আদালতে সেসব মামলার বিচার করার চেষ্টা করছে তারা। ঢাকায় বিকেল ৫টা পর্যন্ত সাক্ষী হয়। আপনাদের এখানেও নাকি একই অবস্থা। সারা বাংলাদেশে একই অবস্থা চলছে। তারা চায় বিএনপি যেকোনো অবস্থায় নির্বাচন করুক। যদি বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে তাহলে তাদের কোনো প্রার্থীর জামানতও থাকবে না। এটা তারা বুঝতে পেরেছে। তারা তা বুঝতে পেরেই বেছে বেছে আগামীতে আমাদের যেসব নেতা নির্বাচন করবেন তাঁদের মামলাগুলোর সাজানো সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করাচ্ছে। আমাদের সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে নাইকো মামলার সাক্ষী বেছে বেছে নেওয়া হচ্ছে। এর কোনো বিধান নেই। এ বিষয়ে আইনজীবীদের বলব, আপনারা এর প্রতিবাদ করবেন।’

মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানের নেতৃত্বে আইনজীবীদের পদযাত্রায় আরও উপস্থিত ছিলেন ইউনাইটেড ল’ ইয়ার্স ফ্রন্টের যুগ্ম আহ্বায়ক সিনিয়র আইনজীবী সুব্রত চৌধুরী, সদস্য ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল, প্রধান সমন্বয়কারী ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, সমন্বয়কারী সৈয়দ মামুন মাহবুব, মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট আবু আল ইউসুফ খান টিপু প্রমুখ।

পদযাত্রাটি চাষাঢ়া থেকে শুরু হয়ে নারায়ণগঞ্জ ক্লাব হয়ে, দুই নং রেলগেইট দিয়ে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে ডিআইটি রোডে বিএনপির পুরোনো কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় আইনজীবীরা বিভিন্ন ব্যানার-ফেস্টুনে সুসজ্জিত হয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সরকারের পদত্যাগ দাবিসহ বিভিন্ন স্লোগান দেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

বিচারপতিরাও রাজনীতির মাঠে নেমে পড়েছেন : জয়নুল আবেদীন

আপডেট সময় : ০১:২৭:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

‘সর্বোচ্চ আদালতের বিচারপতিরাও আজ রাজনীতির মাঠে নেমে পড়েছেন। আমরা ইতোমধ্যে এর প্রতিবাদ করেছি’ বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও ইউনাইটেড ল ইয়ার্স ফ্রন্টের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন। আজ বৃহস্পতিবার (৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নারায়ণগঞ্জে আইনজীবীদের পদযাত্রা শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

ইউনাইটেড ল ইয়ার্স ফ্রন্ট জেলা ইউনিটের উদ্যোগে লুণ্ঠিত ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবিতে আইনজীবীদের এ পদযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়।

অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেন, ‘বিচারপতিরা যদি রাজনীতি করেন তাহলে তাঁরা যে শপথ করে এসেছেন, তা ভঙ্গ হয়। তাঁদের রাজনীতির মাঠে আসতে হলে আগে পদত্যাগ করে তারপর রাজনীতি করতে হবে। বিএনপির আইনজীবীরা এর প্রতিবাদ করায় সাতজনের বিরুদ্ধে ইতোমধ্যে আদালত অবমাননার পিটিশন দায়ের করা হয়েছে। আমরা বলেছি, এই আদালত অবমাননার পিটিশন আইনগতভাবে আমরা লড়ব ইনশা আল্লাহ।’

জয়নুল আবেদীন আরও বলেন, ‘আপনারা জানেন, আমাদের ৪০ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা পেন্ডিং আছে। উচ্চ আদালতকে বাদ দিয়ে নিম্ন আদালতে সেসব মামলার বিচার করার চেষ্টা করছে তারা। ঢাকায় বিকেল ৫টা পর্যন্ত সাক্ষী হয়। আপনাদের এখানেও নাকি একই অবস্থা। সারা বাংলাদেশে একই অবস্থা চলছে। তারা চায় বিএনপি যেকোনো অবস্থায় নির্বাচন করুক। যদি বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে তাহলে তাদের কোনো প্রার্থীর জামানতও থাকবে না। এটা তারা বুঝতে পেরেছে। তারা তা বুঝতে পেরেই বেছে বেছে আগামীতে আমাদের যেসব নেতা নির্বাচন করবেন তাঁদের মামলাগুলোর সাজানো সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ করাচ্ছে। আমাদের সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে নাইকো মামলার সাক্ষী বেছে বেছে নেওয়া হচ্ছে। এর কোনো বিধান নেই। এ বিষয়ে আইনজীবীদের বলব, আপনারা এর প্রতিবাদ করবেন।’

মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খানের নেতৃত্বে আইনজীবীদের পদযাত্রায় আরও উপস্থিত ছিলেন ইউনাইটেড ল’ ইয়ার্স ফ্রন্টের যুগ্ম আহ্বায়ক সিনিয়র আইনজীবী সুব্রত চৌধুরী, সদস্য ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল, প্রধান সমন্বয়কারী ব্যারিস্টার কায়সার কামাল, সমন্বয়কারী সৈয়দ মামুন মাহবুব, মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব অ্যাডভোকেট আবু আল ইউসুফ খান টিপু প্রমুখ।

পদযাত্রাটি চাষাঢ়া থেকে শুরু হয়ে নারায়ণগঞ্জ ক্লাব হয়ে, দুই নং রেলগেইট দিয়ে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে ডিআইটি রোডে বিএনপির পুরোনো কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় আইনজীবীরা বিভিন্ন ব্যানার-ফেস্টুনে সুসজ্জিত হয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সরকারের পদত্যাগ দাবিসহ বিভিন্ন স্লোগান দেন।