ঢাকা ০৬:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

খালেদার মুক্তির দাবিতে পদযাত্রা, পুলিশ-আইনজীবী সংঘর্ষ

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ১০:৫৫:১২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৪৭৪ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

খালেদা জিয়ার মুক্তি, ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবিতে বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের পদযাত্রায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা আইনজীবী সমিতির মূল ফটকের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

এতে কোতয়ালী জোনের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মুহিত কবির সেরনিয়াবাতসহ ৫-৬ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। আর বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের দাবি, পুলিশের লাঠিচার্জে অর্ধশতাধিক আইনজীবী আহত হয়েছেন। কয়েকজনকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, ইউনাইটেড ল’ইয়ার্স ফ্রন্ট ঢাকা বার ইউনিটি ভোটাধিকার, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এ পদযাত্রার আয়োজন করে। বেলা ১২ টার দিকে তারা ঢাকা আইনজীবী সমিতির সামনে থেকে পদযাত্রা নিয়ে রায় সাহেব বাজার অভিমুখে যাত্রা করে। কিছু দূর যেতেই পুলিশ তাদের পথরোধ করে। এ সময় তাদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। আইনজীবীরা পুলিশের ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে।

একপর্যায়ে পুলিশ তাদের ওপর লাঠিচার্জ করে। তারপরও আইনজীবীরা সামনের দিকে এগিয়ে যায়। তারা ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতের প্রধান ফটকের সামনে যান। সেখান দিয়ে সিএমএম আদালতে ঢুকতে গেলে পুলিশ তাদের আটকে দেয়। কিছুক্ষণ সেখানে ধাক্কাধাক্কি হয়। পরে পুলিশ প্রধান ফটক খুলে দেয়। আইনজীবীরা সিএমএম আদালতের সামনে অবস্থান নিয়ে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন। কিছুক্ষণ অবস্থান করে তারা সেখান থেকে ঢাকা আইনজীবী সমিতি ভবনের সামনে আসেন। তারা সেখানে এসে সমাপনী বক্তব্য দেন। তারা বলেন, শেখ হাসিনার পদত্যাগের আন্দোলন চলছে, চলবে। যতই বাঁধা আসুক, আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাব। যত বাঁধা আসবে, আন্দোলন আরও কঠোর হবে।

বিএনপির আইনবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল বলেন, ‘এটা আমাদের পূর্বঘোষিত কর্মসূচি ছিল। আমরা শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালন করছিলাম। প্রধানমন্ত্রী, আইনমন্ত্রী এবং অ্যাটর্নি জেনারেলের নির্দেশে আজ পুলিশ বাহিনী আইনজীবীদের ওপর হামলা চালিয়েছে। এ হামলা শুধু আইনজীবীদের ওপর হামলা না; আইনের শাসন, মানবাধিকারের ওপর হামলা। আমরা এই হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। আইনজীবী প্রতিজ্ঞাবদ্ধ, যতদিন পর্যন্ত সরকারের পতন না হবে ততদিন তারা ঘরে ফিরে যাবে না।’

কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুর রহমান বলেন, ‘আইনজীবীরা সাধারণত আদালতের ভেতর কর্মসূচি পালন করেন। তারা আজ আদালতের বাইরে এসে কর্মসূচি পালন করছেন। আমরা অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রস্তুত ছিলাম। কিন্তু তারা অতি উৎসাহী হয়ে আমাদের ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করেছে। এতে আমাদের কয়েকজন সদস্য আহত হয়েছেন।’

এদিকে এ ঘটনার পর আদালতপাড়ায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

খালেদার মুক্তির দাবিতে পদযাত্রা, পুলিশ-আইনজীবী সংঘর্ষ

আপডেট সময় : ১০:৫৫:১২ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০২৩

খালেদা জিয়ার মুক্তি, ভোটাধিকার ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের দাবিতে বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের পদযাত্রায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। মঙ্গলবার (১২ সেপ্টেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ঢাকা আইনজীবী সমিতির মূল ফটকের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

এতে কোতয়ালী জোনের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মুহিত কবির সেরনিয়াবাতসহ ৫-৬ জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। আর বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের দাবি, পুলিশের লাঠিচার্জে অর্ধশতাধিক আইনজীবী আহত হয়েছেন। কয়েকজনকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জানা গেছে, ইউনাইটেড ল’ইয়ার্স ফ্রন্ট ঢাকা বার ইউনিটি ভোটাধিকার, গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার ও খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে এ পদযাত্রার আয়োজন করে। বেলা ১২ টার দিকে তারা ঢাকা আইনজীবী সমিতির সামনে থেকে পদযাত্রা নিয়ে রায় সাহেব বাজার অভিমুখে যাত্রা করে। কিছু দূর যেতেই পুলিশ তাদের পথরোধ করে। এ সময় তাদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। আইনজীবীরা পুলিশের ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে।

একপর্যায়ে পুলিশ তাদের ওপর লাঠিচার্জ করে। তারপরও আইনজীবীরা সামনের দিকে এগিয়ে যায়। তারা ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালতের প্রধান ফটকের সামনে যান। সেখান দিয়ে সিএমএম আদালতে ঢুকতে গেলে পুলিশ তাদের আটকে দেয়। কিছুক্ষণ সেখানে ধাক্কাধাক্কি হয়। পরে পুলিশ প্রধান ফটক খুলে দেয়। আইনজীবীরা সিএমএম আদালতের সামনে অবস্থান নিয়ে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন। কিছুক্ষণ অবস্থান করে তারা সেখান থেকে ঢাকা আইনজীবী সমিতি ভবনের সামনে আসেন। তারা সেখানে এসে সমাপনী বক্তব্য দেন। তারা বলেন, শেখ হাসিনার পদত্যাগের আন্দোলন চলছে, চলবে। যতই বাঁধা আসুক, আমরা আন্দোলন চালিয়ে যাব। যত বাঁধা আসবে, আন্দোলন আরও কঠোর হবে।

বিএনপির আইনবিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার কায়সার কামাল বলেন, ‘এটা আমাদের পূর্বঘোষিত কর্মসূচি ছিল। আমরা শান্তিপূর্ণভাবে কর্মসূচি পালন করছিলাম। প্রধানমন্ত্রী, আইনমন্ত্রী এবং অ্যাটর্নি জেনারেলের নির্দেশে আজ পুলিশ বাহিনী আইনজীবীদের ওপর হামলা চালিয়েছে। এ হামলা শুধু আইনজীবীদের ওপর হামলা না; আইনের শাসন, মানবাধিকারের ওপর হামলা। আমরা এই হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। আইনজীবী প্রতিজ্ঞাবদ্ধ, যতদিন পর্যন্ত সরকারের পতন না হবে ততদিন তারা ঘরে ফিরে যাবে না।’

কোতয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিনুর রহমান বলেন, ‘আইনজীবীরা সাধারণত আদালতের ভেতর কর্মসূচি পালন করেন। তারা আজ আদালতের বাইরে এসে কর্মসূচি পালন করছেন। আমরা অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রস্তুত ছিলাম। কিন্তু তারা অতি উৎসাহী হয়ে আমাদের ওপর ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করেছে। এতে আমাদের কয়েকজন সদস্য আহত হয়েছেন।’

এদিকে এ ঘটনার পর আদালতপাড়ায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।