ঢাকা ১২:৪৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

৫ পণ্যের দাম বেঁধে দিলো সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ১০:৫৪:১৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৪৭০ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

নিত্যপ্রয়োজনীয় পাঁচ পণ্য সয়াবিন, পেঁয়াজ, চিনি, ডিম ও আলুর দাম বেঁধে দিয়েছে সরকার বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। প্রতি পিস ডিমের দাম ১২ টাকা, আলুর সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ৩৫ থেকে ৩৬ টাকা, পেঁয়াজ ৬৪ থেকে ৬৫ টাকা, বোতলজাত সয়াবিন তেল ১৬৯ টাকা, খোলা তেল ১৪৯ ও পাম ১২৪ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। সেইসঙ্গে খোলা চিনি ১২০ টাকা ও প্যাকেট চিনি প্রতি কেজি ১৩৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে নিত্যপ্রয়োজনীয় কৃষিপণ্যের উৎপাদন, চাহিদা ও মূল্য পরিস্থিতি পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এই তথ্য জানান।

টিপু মুনশি জানান, প্রতি লিটার বোতলজাত এবং খোলা সয়াবিন তেলের দাম ৫ টাকা কমানো হয়েছে। নতুন দর যথাক্রমে ১৬৯ টাকা এবং ১৫৯ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া পাম তেলের মূল্য ৪ টাকা কমানো হয়েছে। লিটারপ্রতি দর ধার্য করা হয়েছে ১২৪ টাকা।

তিনি বলেন, ভোক্তা পর্যায়ে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ৬৪ থেকে ৬৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। কেজিতে আলুর দর ৩৫ থেকে ৩৬ টাকা ধরা হয়েছে। আর কেজিপ্রতি খোলা চিনির মূল্য ১২০ টাকা এবং প্যাকেটজাত ১৩৫ টাকা ঠিক করা হয়েছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, প্রতি পিস ডিমের মূল্য সর্বোচ্চ ১২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। একই সঙ্গে পণ্যটি আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।শুরুতে অল্প পরিমাণে আনা হবে। তাতেও দাম নিয়ন্ত্রণে না এলে পরে বেশি পরিমাণে আমদানি হবে।

টিপু মুনশি বলেন, এক থেকে দুই দিনের নিত্যপণ্যগুলোর নতুন মূল্য কার্যকর হবে। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর বিকেল থেকেই অভিযানে নামবে।

তিনি বলেন, বাজারে কোনও কারণ ছাড়াই অনেক পণ্যের দাম বেড়েছে। এর মধ্যে আলু, পেঁয়াজ, ডিম অন্যতম। এখন ন্যায্য দাম কার্যকর করবো। এটা আমাদের সিদ্ধান্ত।

নিউজটি শেয়ার করুন

৫ পণ্যের দাম বেঁধে দিলো সরকার

আপডেট সময় : ১০:৫৪:১৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২৩

নিত্যপ্রয়োজনীয় পাঁচ পণ্য সয়াবিন, পেঁয়াজ, চিনি, ডিম ও আলুর দাম বেঁধে দিয়েছে সরকার বলে জানিয়েছেন বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি। প্রতি পিস ডিমের দাম ১২ টাকা, আলুর সর্বোচ্চ খুচরা মূল্য ৩৫ থেকে ৩৬ টাকা, পেঁয়াজ ৬৪ থেকে ৬৫ টাকা, বোতলজাত সয়াবিন তেল ১৬৯ টাকা, খোলা তেল ১৪৯ ও পাম ১২৪ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। সেইসঙ্গে খোলা চিনি ১২০ টাকা ও প্যাকেট চিনি প্রতি কেজি ১৩৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে নিত্যপ্রয়োজনীয় কৃষিপণ্যের উৎপাদন, চাহিদা ও মূল্য পরিস্থিতি পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এই তথ্য জানান।

টিপু মুনশি জানান, প্রতি লিটার বোতলজাত এবং খোলা সয়াবিন তেলের দাম ৫ টাকা কমানো হয়েছে। নতুন দর যথাক্রমে ১৬৯ টাকা এবং ১৫৯ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া পাম তেলের মূল্য ৪ টাকা কমানো হয়েছে। লিটারপ্রতি দর ধার্য করা হয়েছে ১২৪ টাকা।

তিনি বলেন, ভোক্তা পর্যায়ে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম ৬৪ থেকে ৬৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। কেজিতে আলুর দর ৩৫ থেকে ৩৬ টাকা ধরা হয়েছে। আর কেজিপ্রতি খোলা চিনির মূল্য ১২০ টাকা এবং প্যাকেটজাত ১৩৫ টাকা ঠিক করা হয়েছে।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, প্রতি পিস ডিমের মূল্য সর্বোচ্চ ১২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। একই সঙ্গে পণ্যটি আমদানির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।শুরুতে অল্প পরিমাণে আনা হবে। তাতেও দাম নিয়ন্ত্রণে না এলে পরে বেশি পরিমাণে আমদানি হবে।

টিপু মুনশি বলেন, এক থেকে দুই দিনের নিত্যপণ্যগুলোর নতুন মূল্য কার্যকর হবে। জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর বিকেল থেকেই অভিযানে নামবে।

তিনি বলেন, বাজারে কোনও কারণ ছাড়াই অনেক পণ্যের দাম বেড়েছে। এর মধ্যে আলু, পেঁয়াজ, ডিম অন্যতম। এখন ন্যায্য দাম কার্যকর করবো। এটা আমাদের সিদ্ধান্ত।