১০:৪৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ঢাকা মেডিকেলে জন্ম নিলো প্রথম টেস্ট টিউব বেবি

দেশে সরকারি ব্যবস্থাপনায় প্রথমবারের মতো জন্ম নিলো টেস্ট টিউব বেবি। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা সম্প্রতি এ ইতিহাস তৈরি করেছেন। জন্ম নেওয়া শিশুটি সুস্থ আছে বলে জানিয়েছে মেডিকেল কর্তৃপক্ষ। দেশে এর আগে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় টেস্ট টিউব বেবির জন্ম হলেও সরকারি ব্যবস্থাপনায় এটিই প্রথম।

মেডিকেলের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা জানান, বন্ধ্যা নারীর মা হওয়ার আধুনিক পদ্ধতি টেস্ট টিউব বেবি বা ইন ভিট্রো ফার্টিলাইজেশন। স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় সন্তান জন্ম দিতে ব্যর্থ হলে এই পদ্ধতিতে শিশু জন্ম দেওয়ার বিষয়টি বিশ্বজুরে বেশ জনপ্রিয়।

দেশের অনেক নি:সন্তান দম্পতি প্রতি বছর বন্ধাত্ব চিকিৎসার জন্র পাশের দেশ ভারতে যান। বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানেও এই চিকিৎসার সুযোগ আছে। তবে এগুলো অনেক ব্যয়বহুল। সরকারি ব্যবস্থাপনায় এ সুযোগ তৈরি হওয়ায় আর্থিকভাবে সচ্ছল নয় এমন অনেক বন্ধ্যা দম্পতিই এখন সন্তান জন্ম দেওয়ার স্বপ্ন দেখতে পারবেন।

শুক্রবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাজমুল হক বলেন, ‘হাসপাতালের বন্ধ্যত্ব বিশেষজ্ঞদের প্রচেষ্টায় বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো সরকারি ব্যবস্থাপনায় জন্ম নিয়েছে টেস্ট টিউব শিশু। প্রায় দুই সপ্তাহ আগে জন্ম নেয় শিশুটি। বর্তমানে শিশুটি অধ্যাপক ফাতেমা রহমানের তত্ত্বাবধানে আছে। সরকারি কোনো হাসপাতালে এ প্রথম কোনো টেস্ট টিউব বেবির জন্ম হলো। স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ বিষয়ে পরবর্তীতে আনুষ্ঠানিকভাবে গণমাধ্যমকে বিস্তারিত জানাবেন।’

বিশ্বের প্রথম টেস্ট টিউব শিশুটির জন্ম হয় যুক্তরাজ্যে, ১৯৭৮ সালের ২৫ জানুয়ারি। আর ২০০১ সালে বাংলাদেশে প্রথম টেস্ট টিউব বেবি জন্ম হয়। এরপর বেসরকারিভাবে কিছু হাসপাতালে ধারাবাহিকভাবে এটি হলেও সরকারিভাবে এই সুযোগ ছিলো না।

ঢাকা মেডিকেলে জন্ম নিলো প্রথম টেস্ট টিউব বেবি

আপডেট : ০৯:৫০:৫১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩

দেশে সরকারি ব্যবস্থাপনায় প্রথমবারের মতো জন্ম নিলো টেস্ট টিউব বেবি। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা সম্প্রতি এ ইতিহাস তৈরি করেছেন। জন্ম নেওয়া শিশুটি সুস্থ আছে বলে জানিয়েছে মেডিকেল কর্তৃপক্ষ। দেশে এর আগে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় টেস্ট টিউব বেবির জন্ম হলেও সরকারি ব্যবস্থাপনায় এটিই প্রথম।

মেডিকেলের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা জানান, বন্ধ্যা নারীর মা হওয়ার আধুনিক পদ্ধতি টেস্ট টিউব বেবি বা ইন ভিট্রো ফার্টিলাইজেশন। স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় সন্তান জন্ম দিতে ব্যর্থ হলে এই পদ্ধতিতে শিশু জন্ম দেওয়ার বিষয়টি বিশ্বজুরে বেশ জনপ্রিয়।

দেশের অনেক নি:সন্তান দম্পতি প্রতি বছর বন্ধাত্ব চিকিৎসার জন্র পাশের দেশ ভারতে যান। বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানেও এই চিকিৎসার সুযোগ আছে। তবে এগুলো অনেক ব্যয়বহুল। সরকারি ব্যবস্থাপনায় এ সুযোগ তৈরি হওয়ায় আর্থিকভাবে সচ্ছল নয় এমন অনেক বন্ধ্যা দম্পতিই এখন সন্তান জন্ম দেওয়ার স্বপ্ন দেখতে পারবেন।

শুক্রবার ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাজমুল হক বলেন, ‘হাসপাতালের বন্ধ্যত্ব বিশেষজ্ঞদের প্রচেষ্টায় বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো সরকারি ব্যবস্থাপনায় জন্ম নিয়েছে টেস্ট টিউব শিশু। প্রায় দুই সপ্তাহ আগে জন্ম নেয় শিশুটি। বর্তমানে শিশুটি অধ্যাপক ফাতেমা রহমানের তত্ত্বাবধানে আছে। সরকারি কোনো হাসপাতালে এ প্রথম কোনো টেস্ট টিউব বেবির জন্ম হলো। স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ বিষয়ে পরবর্তীতে আনুষ্ঠানিকভাবে গণমাধ্যমকে বিস্তারিত জানাবেন।’

বিশ্বের প্রথম টেস্ট টিউব শিশুটির জন্ম হয় যুক্তরাজ্যে, ১৯৭৮ সালের ২৫ জানুয়ারি। আর ২০০১ সালে বাংলাদেশে প্রথম টেস্ট টিউব বেবি জন্ম হয়। এরপর বেসরকারিভাবে কিছু হাসপাতালে ধারাবাহিকভাবে এটি হলেও সরকারিভাবে এই সুযোগ ছিলো না।