০৪:৪৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যে সব ধারা নিয়ে আপত্তি ছিল সেগুলো পরিবর্তন করা হয়েছে : আইনমন্ত্রী

আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টে যে সব ধারা নিয়ে সাংবাদিক মহলের আপত্তি ছিল, সাইবার সিকিউরিটি অ্যাক্টে সেগুলোর আমূল পরিবর্তন করা হয়েছে। এছাড়া সাইবার সিকিউরিটি অ্যাক্টে টেকনিকেল অপরাধ হল সেই হ্যাকিং যা কম্পিউটারের ভেতরে ঢুকে যদি কেউ কোনো কিছু নষ্ট করে সেই জন্য ১৪ বছরের সাজা।

শুক্রবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া আখাউড়া উপজেলার দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

বিনা পরোয়ানায় গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, সাইবার সিকিউরিটি অ্যাক্টে আমলযোগ্য অপরাধের মাত্র ৪টি ধারা রয়েছে। আমলযোগ্য অপরাধ ছাড়া বিনা পরোয়ানায় গ্রেপ্তার করার সুযোগ কোনো আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নেই। যে সব প্রশ্ন উত্থাপন করা হচ্ছে এগুলো সাইবার সিকিউরিটি অ্যাক্টের অপব্যাখ্যা।

হীরাপুর শহীদ নোয়াব মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে আয়োজিত সভায় দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মজনু মিয়ার সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী চৌধুরী, সাধারণ সম্পদক তাকজিল খলিফা কাজলসহ উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

যে সব ধারা নিয়ে আপত্তি ছিল সেগুলো পরিবর্তন করা হয়েছে : আইনমন্ত্রী

আপডেট : ১০:০৩:০৪ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩

আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেছেন, ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টে যে সব ধারা নিয়ে সাংবাদিক মহলের আপত্তি ছিল, সাইবার সিকিউরিটি অ্যাক্টে সেগুলোর আমূল পরিবর্তন করা হয়েছে। এছাড়া সাইবার সিকিউরিটি অ্যাক্টে টেকনিকেল অপরাধ হল সেই হ্যাকিং যা কম্পিউটারের ভেতরে ঢুকে যদি কেউ কোনো কিছু নষ্ট করে সেই জন্য ১৪ বছরের সাজা।

শুক্রবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া আখাউড়া উপজেলার দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

বিনা পরোয়ানায় গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, সাইবার সিকিউরিটি অ্যাক্টে আমলযোগ্য অপরাধের মাত্র ৪টি ধারা রয়েছে। আমলযোগ্য অপরাধ ছাড়া বিনা পরোয়ানায় গ্রেপ্তার করার সুযোগ কোনো আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর নেই। যে সব প্রশ্ন উত্থাপন করা হচ্ছে এগুলো সাইবার সিকিউরিটি অ্যাক্টের অপব্যাখ্যা।

হীরাপুর শহীদ নোয়াব মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে আয়োজিত সভায় দক্ষিণ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মজনু মিয়ার সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী চৌধুরী, সাধারণ সম্পদক তাকজিল খলিফা কাজলসহ উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতৃবন্দরা উপস্থিত ছিলেন।