০৪:০৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাশিয়ার যুদ্ধবিমান কারখানা ঘুরে দেখলেন কিম

পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা রাশিয়ার যুদ্ধবিমান কারখানা ঘুরে দেখেছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। আজ শুক্রবার রাশিয়ার পূর্বাঞ্চলের কমসো-মোলস্ক শহরের দুটি যুদ্ধবিমান কারখানা ঘুরে দেখেন তিনি।

ক্রেমলিন জানায়, গ্যাগারিন প্লান্টে সুখোই এসইউ- থারটি ফাইভ এবং এসইউ-ফিফটি সেভেন ফাইটার জেট পরিদর্শন করেন উন। এসময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন রুশ উপ-প্রধানমন্ত্রী ডেনিস মান্তুরভ।

ক্রেমলিন আরও জানায়, প্ল্যান্টের প্রযুক্তিগত ক্ষমতাও পরিদর্শন করেছেন উন। যাকে অত্যাধুনিক ও সুসজ্জিত করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা বিশ্বের শঙ্কা, রাশিয়া সফরের মাধ্যমে মস্কোতে অস্ত্র সরবরাহ বৃদ্ধি এবং নিজেদের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচিকে শক্তিশালী করবে উত্তর কোরিয়া।

প্রায় দুই দিন ট্রেনে চড়ে উত্তর কোরিয়া থেকে গতকাল মঙ্গলবার রাশিয়ায় এসে পৌঁছান কিম। এরপরদিন পুতিন-কিমের মধ্যে বৈঠক হয়। ধারণা করা হচ্ছে, এ সফরে ইউক্রেন যুদ্ধের জন্য রাশিয়ার কাছে অস্ত্র বিক্রির চুক্তি করতে পারেন কিম।

যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, এ চুক্তি হলে উত্তর কোরিয়ার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হবে।

রাশিয়ার যুদ্ধবিমান কারখানা ঘুরে দেখলেন কিম

আপডেট : ০৯:৩২:৩৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১৫ সেপ্টেম্বর ২০২৩

পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা রাশিয়ার যুদ্ধবিমান কারখানা ঘুরে দেখেছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন। আজ শুক্রবার রাশিয়ার পূর্বাঞ্চলের কমসো-মোলস্ক শহরের দুটি যুদ্ধবিমান কারখানা ঘুরে দেখেন তিনি।

ক্রেমলিন জানায়, গ্যাগারিন প্লান্টে সুখোই এসইউ- থারটি ফাইভ এবং এসইউ-ফিফটি সেভেন ফাইটার জেট পরিদর্শন করেন উন। এসময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন রুশ উপ-প্রধানমন্ত্রী ডেনিস মান্তুরভ।

ক্রেমলিন আরও জানায়, প্ল্যান্টের প্রযুক্তিগত ক্ষমতাও পরিদর্শন করেছেন উন। যাকে অত্যাধুনিক ও সুসজ্জিত করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা বিশ্বের শঙ্কা, রাশিয়া সফরের মাধ্যমে মস্কোতে অস্ত্র সরবরাহ বৃদ্ধি এবং নিজেদের ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচিকে শক্তিশালী করবে উত্তর কোরিয়া।

প্রায় দুই দিন ট্রেনে চড়ে উত্তর কোরিয়া থেকে গতকাল মঙ্গলবার রাশিয়ায় এসে পৌঁছান কিম। এরপরদিন পুতিন-কিমের মধ্যে বৈঠক হয়। ধারণা করা হচ্ছে, এ সফরে ইউক্রেন যুদ্ধের জন্য রাশিয়ার কাছে অস্ত্র বিক্রির চুক্তি করতে পারেন কিম।

যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, এ চুক্তি হলে উত্তর কোরিয়ার ওপর আরও নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হবে।