ঢাকা ০৫:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

সালমান তাঁকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতেন

বিনোদন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৭:৩৮:০৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৪৩৮ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

বলিউড অভিনেতা সালমান খানের সঙ্গে দীর্ঘদিন প্রেমের সম্পর্কে ছিলেন অভিনেত্রী সোমি আলি। এখন তিনি অভিনয়ে নেই, কাজ করছেন সমাজকর্মী হিসেবে। সম্প্রতি এই অভিনেত্রী দাবি করেছিলেন, সালমান খান তাঁকে মারধর করতেন। এবার অন্য বোমা ফাটালেন সোমি আলি।

বিস্ফোরক সেই মন্তব্যে তিনি জানান, সালমান খান তাঁর সাবেক প্রেমিকা সংগীতা বিজলানিকে প্রায় বিয়ে করেই ফেলেছিলেন, কিন্তু একটি বিশেষ কারণে ভেঙে যায় সেই বিয়ে।

সম্প্রতি ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আজতককে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সোমি জানিয়েছেন, সালমান সেই সময় সংগীতাকে ঠকিয়ে ছিলেন। সংগীতাও সালমানের সেই প্রতারণা হাতেনাতে ধরে ফেলেছিলেন।

এ প্রসঙ্গে সোমির ভাষ্য, ‘সংগীতা ও সালমানের বিয়ের কার্ডও ছাপা হয়ে গিয়েছিল, কিন্তু আমার অ্যাপার্টমেন্টে সালমানকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন সংগীতা। সালমান সংগীতার সঙ্গে যা করেছে, আমার সঙ্গেও তাই হয়েছে। একেই বলা হয় কর্মফল, যখন আমি একটু বড় হই, তখন আমি এটি বুঝতে পারি।’

নিজের ভুলের কথা স্বীকার করে সোমি আরও জানান, সালমানের প্রতি তাঁর ক্রাশ ছিল এবং বলিউডে ভাগ্য পরীক্ষা করার পাশাপাশি অভিনেতাকে বিয়ে করার জন্য মুম্বাই এসেছিলেন তিনি। তবে সোমির দাবি, ‘ভালবাসা ও যত্ন’ দেখানোর অজুহাতে সালমান তাঁকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতে থাকেন।

শোনা যায়, নব্বইয়ের দশকে সালমান ও সোমির মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। যদিও জনসমক্ষে তাঁদের সম্পর্ক খুব অল্প সময়ের জন্য ছিল। তবে সোমি প্রায়ই বলেন, আট বছর ধরে তাঁরা প্রেমের সম্পর্কে ছিলেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

সালমান তাঁকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতেন

আপডেট সময় : ০৭:৩৮:০৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩

বলিউড অভিনেতা সালমান খানের সঙ্গে দীর্ঘদিন প্রেমের সম্পর্কে ছিলেন অভিনেত্রী সোমি আলি। এখন তিনি অভিনয়ে নেই, কাজ করছেন সমাজকর্মী হিসেবে। সম্প্রতি এই অভিনেত্রী দাবি করেছিলেন, সালমান খান তাঁকে মারধর করতেন। এবার অন্য বোমা ফাটালেন সোমি আলি।

বিস্ফোরক সেই মন্তব্যে তিনি জানান, সালমান খান তাঁর সাবেক প্রেমিকা সংগীতা বিজলানিকে প্রায় বিয়ে করেই ফেলেছিলেন, কিন্তু একটি বিশেষ কারণে ভেঙে যায় সেই বিয়ে।

সম্প্রতি ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আজতককে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সোমি জানিয়েছেন, সালমান সেই সময় সংগীতাকে ঠকিয়ে ছিলেন। সংগীতাও সালমানের সেই প্রতারণা হাতেনাতে ধরে ফেলেছিলেন।

এ প্রসঙ্গে সোমির ভাষ্য, ‘সংগীতা ও সালমানের বিয়ের কার্ডও ছাপা হয়ে গিয়েছিল, কিন্তু আমার অ্যাপার্টমেন্টে সালমানকে হাতেনাতে ধরে ফেলেন সংগীতা। সালমান সংগীতার সঙ্গে যা করেছে, আমার সঙ্গেও তাই হয়েছে। একেই বলা হয় কর্মফল, যখন আমি একটু বড় হই, তখন আমি এটি বুঝতে পারি।’

নিজের ভুলের কথা স্বীকার করে সোমি আরও জানান, সালমানের প্রতি তাঁর ক্রাশ ছিল এবং বলিউডে ভাগ্য পরীক্ষা করার পাশাপাশি অভিনেতাকে বিয়ে করার জন্য মুম্বাই এসেছিলেন তিনি। তবে সোমির দাবি, ‘ভালবাসা ও যত্ন’ দেখানোর অজুহাতে সালমান তাঁকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতে থাকেন।

শোনা যায়, নব্বইয়ের দশকে সালমান ও সোমির মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। যদিও জনসমক্ষে তাঁদের সম্পর্ক খুব অল্প সময়ের জন্য ছিল। তবে সোমি প্রায়ই বলেন, আট বছর ধরে তাঁরা প্রেমের সম্পর্কে ছিলেন।