১১:২৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বরিশালে সাদিক আবদুল্লাহর বিরুদ্ধে মামলা

বরিশাল সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ মামলায় করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাসহ আরও চার জনকে আসামি করা হয়েছে।

সিটি করপোরেশনের প্রকৌশলী পদে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেয়া কর্মকর্তার বেতন-ভাতা বন্ধ করে অপর একজনকে অবৈধভাবে নিয়োগ দেয়ার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়।

মঙ্গলবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সিটি করপোরেশনের নেটওয়াকিং ইঞ্জিনিয়ার পদের চুক্তিভিত্তিক কর্মকর্তা শেখ মো. সোয়েব কবির বাদী হয়ে বরিশাল সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে মেয়রসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে নালিশী মামলা দায়ের করেন।

আদালতের বিচারক মো. হাসিবুল হাসান মামলা গ্রহণ করে আদেশের জন্য রেখেছেন বলে সাংবাদিকদের জানান বেঞ্চ সহকারী মো. বায়জিদ।

মামলার বিবাদীরা হলেন- সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ কমিটির সদস্য সচিব, বাজেট কাম হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা ও নেটওয়াকিং ইঞ্জিনিয়ারিং পদে বর্তমানে কর্মরত ওবায়দুর রহমান।

বাদীর আইনজীবী আজাদ রহমান নালিশীর বরাতে জানান, ২০২০ সালের ১৯ নভেম্বর নেটওয়াকিং পদে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করে বাদী শেখ মো. সোয়েব কবির ২০২১ সালের ৯ মে তিন বছরের জন্য চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পায়। ২০২৩ সালের ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত নিয়মিত বেতন-ভাতা দেয়া হয়। এরপর অজ্ঞাত কারণে বেতন-ভাতা বন্ধ করে দিয়েছে।

নালিশীতে বাদী অভিযোগ করেছেন, তাকে চাকরিচ্যুত না করে সরকারী বিধিবিধান না মেনে একই পদে আরেকজনকে নিয়োগ দিয়েছে। গত ১৭ সেপ্টেম্বর সিটি কর্পোরেশনে গিয়ে বিবাদীদের কার্যালয়ে গিয়ে বেতন-ভাতা দেয়ার ও অবৈধভাবে নিয়োগ বাতিলের অনুরোধ করেন। কিন্তু তারা বেতন-ভাতা ও নিয়োগ বাতিল করা হবে না বলে জানিয়েছে।

তাই বেতন-ভাতা দিতে ও অবৈধ নিয়োগ বাতিলের প্রতিকার চাওয়া হয়েছে নালিশীতে।

বরিশালে সাদিক আবদুল্লাহর বিরুদ্ধে মামলা

আপডেট : ০৫:২৮:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩

বরিশাল সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ মামলায় করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাসহ আরও চার জনকে আসামি করা হয়েছে।

সিটি করপোরেশনের প্রকৌশলী পদে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ দেয়া কর্মকর্তার বেতন-ভাতা বন্ধ করে অপর একজনকে অবৈধভাবে নিয়োগ দেয়ার অভিযোগে মামলা দায়ের করা হয়।

মঙ্গলবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সিটি করপোরেশনের নেটওয়াকিং ইঞ্জিনিয়ার পদের চুক্তিভিত্তিক কর্মকর্তা শেখ মো. সোয়েব কবির বাদী হয়ে বরিশাল সিনিয়র সহকারী জজ আদালতে মেয়রসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে নালিশী মামলা দায়ের করেন।

আদালতের বিচারক মো. হাসিবুল হাসান মামলা গ্রহণ করে আদেশের জন্য রেখেছেন বলে সাংবাদিকদের জানান বেঞ্চ সহকারী মো. বায়জিদ।

মামলার বিবাদীরা হলেন- সিটি মেয়র সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা, চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ কমিটির সদস্য সচিব, বাজেট কাম হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা ও নেটওয়াকিং ইঞ্জিনিয়ারিং পদে বর্তমানে কর্মরত ওবায়দুর রহমান।

বাদীর আইনজীবী আজাদ রহমান নালিশীর বরাতে জানান, ২০২০ সালের ১৯ নভেম্বর নেটওয়াকিং পদে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে। লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করে বাদী শেখ মো. সোয়েব কবির ২০২১ সালের ৯ মে তিন বছরের জন্য চুক্তিভিত্তিক নিয়োগ পায়। ২০২৩ সালের ৪ জানুয়ারি পর্যন্ত নিয়মিত বেতন-ভাতা দেয়া হয়। এরপর অজ্ঞাত কারণে বেতন-ভাতা বন্ধ করে দিয়েছে।

নালিশীতে বাদী অভিযোগ করেছেন, তাকে চাকরিচ্যুত না করে সরকারী বিধিবিধান না মেনে একই পদে আরেকজনকে নিয়োগ দিয়েছে। গত ১৭ সেপ্টেম্বর সিটি কর্পোরেশনে গিয়ে বিবাদীদের কার্যালয়ে গিয়ে বেতন-ভাতা দেয়ার ও অবৈধভাবে নিয়োগ বাতিলের অনুরোধ করেন। কিন্তু তারা বেতন-ভাতা ও নিয়োগ বাতিল করা হবে না বলে জানিয়েছে।

তাই বেতন-ভাতা দিতে ও অবৈধ নিয়োগ বাতিলের প্রতিকার চাওয়া হয়েছে নালিশীতে।