ঢাকা ০৪:৫৭ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ম্যানইউকে হারালো বায়ার্ন

ক্রীড়া ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৭:০২:৫১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৩৮০ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপপর্বের ম্যাচে ইউনাইটেডকে ৪-৩ গোলে হারিয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ। ২৮ মিনিটে বায়ার্নের এগিয়ে যাওয়া গোলটি ছিল ম্যানইউ গোলরক্ষক ওনানার ভুলে। বল তার হাত ফসকে জালে জড়িয়ে যায়।

এটি সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ইউনাইটেডের টানা তৃতীয় হার।

প্রথমার্ধে চার মিনিটে দুই গোল করে বায়ার্ন মিউনিখ। তাতেই জয়ের ভিত যেন তৈরি হয়ে গিয়েছিল। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছিল। আভাস দিয়েছিল তীব্র লড়াইয়ের। কিন্তু পারেনি জিততে।

২৮ ও ৩২ মিনিটে লেরয় সানে ও সার্জ গিন্যাব্রির গোলে চোট জর্জর ইউনাইটেডের বিপক্ষে বায়ার্ন চালকের আসনে বসে। ৪৯তম মিনিটে রাসমুস হজলুন্ডের ডিফ্লেক্টেড প্রচেষ্টায় একটি গোল শোধ দেয় ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ক্লাব।

কিন্তু চার মিনিট পর আবার ব্যবধান দুই গোলে বেড়ে দাঁড়ায়। ক্রিস্টিয়ান এরিকসেনের হ্যান্ডবলে পেনাল্টি থেকে ৫৩ মিনিটে গোল করেন হ্যারি কেন।

শেষ দিকে হয়েছে গোল পাল্টা গোলের খেলা। ৮৮তম মিনিটে কাসেমিরো খুব কাছ থেকে ম্যানইউর ব্যবধান কমিয়ে আনেন। বায়ার্নের বদলি খেলোয়াড় মাথিস তেল স্টপেজ টাইমে গোল করে ম্যানচেস্টার ক্লাবের ফেরার আশায় জল ঢালেন। তারপর কাসেমিরো হেড করে আরেকবার জাল কাঁপান। কিন্তু তা টানা তৃতীয় হার থেকে দলকে বাঁচাতে পারেনি।

আগের দুই ম্যাচে ব্রাইটন অ্যানড্ হোভ অ্যালবিওন এবং আর্সেনালের কাছে ৩-১ গোলে হেরেছিল। বায়ার্নের কাছে হারের পর লজ্জার রেকর্ড ফিরিয়ে আনলো তারা। ১৯৭৮ সালের ডিসেম্বরের পর প্রথমবার টানা তিন ম্যাচে তিনটি বা তার বেশি গোল খেলো ম্যানইউ।

নিউজটি শেয়ার করুন

চ্যাম্পিয়ন্স লিগে ম্যানইউকে হারালো বায়ার্ন

আপডেট সময় : ০৭:০২:৫১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২৩

চ্যাম্পিয়নস লিগের গ্রুপপর্বের ম্যাচে ইউনাইটেডকে ৪-৩ গোলে হারিয়েছে বায়ার্ন মিউনিখ। ২৮ মিনিটে বায়ার্নের এগিয়ে যাওয়া গোলটি ছিল ম্যানইউ গোলরক্ষক ওনানার ভুলে। বল তার হাত ফসকে জালে জড়িয়ে যায়।

এটি সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ইউনাইটেডের টানা তৃতীয় হার।

প্রথমার্ধে চার মিনিটে দুই গোল করে বায়ার্ন মিউনিখ। তাতেই জয়ের ভিত যেন তৈরি হয়ে গিয়েছিল। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছিল। আভাস দিয়েছিল তীব্র লড়াইয়ের। কিন্তু পারেনি জিততে।

২৮ ও ৩২ মিনিটে লেরয় সানে ও সার্জ গিন্যাব্রির গোলে চোট জর্জর ইউনাইটেডের বিপক্ষে বায়ার্ন চালকের আসনে বসে। ৪৯তম মিনিটে রাসমুস হজলুন্ডের ডিফ্লেক্টেড প্রচেষ্টায় একটি গোল শোধ দেয় ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ ক্লাব।

কিন্তু চার মিনিট পর আবার ব্যবধান দুই গোলে বেড়ে দাঁড়ায়। ক্রিস্টিয়ান এরিকসেনের হ্যান্ডবলে পেনাল্টি থেকে ৫৩ মিনিটে গোল করেন হ্যারি কেন।

শেষ দিকে হয়েছে গোল পাল্টা গোলের খেলা। ৮৮তম মিনিটে কাসেমিরো খুব কাছ থেকে ম্যানইউর ব্যবধান কমিয়ে আনেন। বায়ার্নের বদলি খেলোয়াড় মাথিস তেল স্টপেজ টাইমে গোল করে ম্যানচেস্টার ক্লাবের ফেরার আশায় জল ঢালেন। তারপর কাসেমিরো হেড করে আরেকবার জাল কাঁপান। কিন্তু তা টানা তৃতীয় হার থেকে দলকে বাঁচাতে পারেনি।

আগের দুই ম্যাচে ব্রাইটন অ্যানড্ হোভ অ্যালবিওন এবং আর্সেনালের কাছে ৩-১ গোলে হেরেছিল। বায়ার্নের কাছে হারের পর লজ্জার রেকর্ড ফিরিয়ে আনলো তারা। ১৯৭৮ সালের ডিসেম্বরের পর প্রথমবার টানা তিন ম্যাচে তিনটি বা তার বেশি গোল খেলো ম্যানইউ।