ঢাকা ১২:২৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা নিয়ে ভয়ের কিছু নেই: প্রধানমন্ত্রী

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৮:২২:০৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩
  • / ৩৮০ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

বাংলাদেশিদের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় ভয় পাওয়ার কিছু নেই বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি মনে করেন, এই নিষেধাজ্ঞায় অন্তত দেশের মানুষের জীবনগুলো বাঁচবে। এখন জামায়াত-বিএনপি আর জ্বালাও পোড়াও করতে পারবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে বাংলাদেশ মিশনে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৮তম অধিবেশনে ভাষণ শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন সরকার প্রধান। তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, বাইরে থেকে বাংলাদেশের নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র হলে দেশের জনগণও তাদের নিষেধাজ্ঞা দেবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার অভ্যন্তরীণ অনেক বাধা অতিক্রম করে ক্ষমতায় আছে। জনগণ ভোট দিলে আবারও ক্ষমতায় আসবে দল। দেশের জনগণই ক্ষমতার মালিক। যদি কেউ অন্য কোনো পন্থায় ক্ষমতায় আসতে চায়, তবে তাদের সাজা পেতে হবে। এখন অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলের সুযোগ নেই বাংলাদেশে।

অনেক সংগ্রামের মধ্য দিয়ে দেশে গণতান্ত্রিক ধারা আনা হয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, কেউ যদি গোলমাল করে অবৈধভাবে ক্ষমতায় আসে, সংবিধান লঙ্ঘন করে তাহলে শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।

বাংলাদেশিদের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই বলে মন্তব্য করেন সরকার প্রধান। তিনি বলেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞার ঘোষণায় অন্তত দেশের মানুষের জীবনগুলো বাঁচবে। এখন জামায়াত-বিএনপি আর জ্বালাও পোড়াও আর করতে পারবে না।

ভোট ও ভাতের অধিকারের আন্দোলন তো আমরাই করেছি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের মানুষ তাদের ভোটের অধিকার নিয়ে যথেষ্ট সচেতন। আর এই সচেতনতা সৃষ্টি করেছি আমরা। আমাদের আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আমাদের বহু নেতা-কর্মীদের রক্তের মধ্য দিয়ে আমরা এই নির্বাচনি প্রক্রিয়াটাকে সুষ্ঠুভাবে নিয়ে এসেছি। আজকে ট্রান্সপারেন্ট ব্যালট বাক্স, ছবিসহ ভোটার তালিকা, ভোটের অধিকার সম্পর্কে মানুষের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করা হয়েছে। আমার ভোট আমি দেবো- এই স্লোগান তো আমার দেওয়া।

সাম্প্রতিক কয়েকটি নির্বাচন নিয়ে সরকার প্রধান বলেন, জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোট দিয়েছে। আমরা ক্ষমতায় এসেছি জনগণের ভোটে। কেউ আমাদের হাতে তুলে দেয়নি। কাজেই নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হোক সেটা আমরাই চাই।

নিউজটি শেয়ার করুন

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা নিয়ে ভয়ের কিছু নেই: প্রধানমন্ত্রী

আপডেট সময় : ০৮:২২:০৬ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩

বাংলাদেশিদের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞায় ভয় পাওয়ার কিছু নেই বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি মনে করেন, এই নিষেধাজ্ঞায় অন্তত দেশের মানুষের জীবনগুলো বাঁচবে। এখন জামায়াত-বিএনপি আর জ্বালাও পোড়াও করতে পারবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে বাংলাদেশ মিশনে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৮তম অধিবেশনে ভাষণ শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন সরকার প্রধান। তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, বাইরে থেকে বাংলাদেশের নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র হলে দেশের জনগণও তাদের নিষেধাজ্ঞা দেবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার অভ্যন্তরীণ অনেক বাধা অতিক্রম করে ক্ষমতায় আছে। জনগণ ভোট দিলে আবারও ক্ষমতায় আসবে দল। দেশের জনগণই ক্ষমতার মালিক। যদি কেউ অন্য কোনো পন্থায় ক্ষমতায় আসতে চায়, তবে তাদের সাজা পেতে হবে। এখন অবৈধভাবে ক্ষমতা দখলের সুযোগ নেই বাংলাদেশে।

অনেক সংগ্রামের মধ্য দিয়ে দেশে গণতান্ত্রিক ধারা আনা হয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, কেউ যদি গোলমাল করে অবৈধভাবে ক্ষমতায় আসে, সংবিধান লঙ্ঘন করে তাহলে শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে।

বাংলাদেশিদের ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা নিয়ে ভয় পাওয়ার কিছু নেই বলে মন্তব্য করেন সরকার প্রধান। তিনি বলেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞার ঘোষণায় অন্তত দেশের মানুষের জীবনগুলো বাঁচবে। এখন জামায়াত-বিএনপি আর জ্বালাও পোড়াও আর করতে পারবে না।

ভোট ও ভাতের অধিকারের আন্দোলন তো আমরাই করেছি উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের মানুষ তাদের ভোটের অধিকার নিয়ে যথেষ্ট সচেতন। আর এই সচেতনতা সৃষ্টি করেছি আমরা। আমাদের আন্দোলন সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আমাদের বহু নেতা-কর্মীদের রক্তের মধ্য দিয়ে আমরা এই নির্বাচনি প্রক্রিয়াটাকে সুষ্ঠুভাবে নিয়ে এসেছি। আজকে ট্রান্সপারেন্ট ব্যালট বাক্স, ছবিসহ ভোটার তালিকা, ভোটের অধিকার সম্পর্কে মানুষের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করা হয়েছে। আমার ভোট আমি দেবো- এই স্লোগান তো আমার দেওয়া।

সাম্প্রতিক কয়েকটি নির্বাচন নিয়ে সরকার প্রধান বলেন, জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে ভোট দিয়েছে। আমরা ক্ষমতায় এসেছি জনগণের ভোটে। কেউ আমাদের হাতে তুলে দেয়নি। কাজেই নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হোক সেটা আমরাই চাই।