ঢাকা ১০:৪৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

গাজার বাসিন্দাদের সরে যাওয়ার আহ্বান ইসরায়েলের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৫:৩৫:১৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৮ অক্টোবর ২০২৩
  • / ৩৮৬ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ফিলিস্তিনের ইসলামপন্থী দল হামাসের বিরুদ্ধে বড় অভিযান চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে ইসরায়েল। এর আগে গাজার বাসিন্দাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে চলে যেতে বলেছে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী। ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

এদিকে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু বলেছেন, ‘ফিলিস্তিনি ”জঙ্গিদের” বিরুদ্ধে প্রবল প্রতিশোধ নেওয়া হবে।’ তিনি গতকালের হামলাকে ‘কালো দিন’ হিসেবেও আখ্যা দিয়েছেন। অন্যতদিকে হামাসের কমান্ডার মোহাম্মদ দেইফ বলেছেন, ‘যথেষ্ট হয়েছে। আর সহ্য করা হবে না। চলমান সংঘর্ষে যেকোনো খারাপ পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য আমরা প্রস্তুত রয়েছি।’

গতকাল শনিবার হামাস ও ইসরায়েলি বাহিনীর সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় অধিকৃত গাজা উপত্যকা। কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, গাজাভিত্তিক ফিলিস্তিনি বাহিনী হামাসের ছোঁড়া ৭ হাজার রকেটে এ পর্যন্ত ৩০০ ইসরায়েলি নিহত হয়েছে, আহত ৯ শতাধিক। ইসরায়েলের পাল্টা হামলায় অন্তত ২৩০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। উভয় পক্ষ মিলিয়ে মৃতের সংখ্যা ৫০০ ছাড়িয়েছে। আহতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১৬ শ। অন্তত হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি ইসরায়েলে প্রবেশ করেছ বলে জানা গেছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত তুমুল লড়াই অব্যাহত ছিল। ইসরায়েলের রাজধানী তেল আবিবসহ আরও বেশ কয়েকটি শহরে নতুন করে রকেট হামলা চালিয়েছে হামাস। ইসরায়েল সরকার জানিয়েছে, তারা অন্তত ২২ জায়গায় হামাসের যোদ্ধাদের সঙ্গে লড়াই করছে। ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, হামাসের যোদ্ধাদের সঙ্গে লড়াইয়ের সময় গতকালই গুলিবিদ্ধ হয়ে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর ব্রিগেড কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্নেল জনাথন স্টেইনবার্গ নিহত হয়েছেন। তিনি ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর নাহাল ব্রিগেডের দায়িত্বে ছিলেন। এই ব্রিগেড ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর প্রধান পদাতিক শাখা।

গতকাল শনিবার ভোরে গাজা, তেল আবিব, অবরুদ্ধ পূর্ব জেরুজালেমে বেজে ওঠে বিমান হামলার সাইরেন। কিছু বুঝে ওঠার আগেই গাজা থেকে ছোড়া রকেটে ছেয়ে যায় আকাশ। এই হামলাকে অপারেশন ‘আল আকসা ফ্লাড’ নাম দিয়েছে হামাস। আল-আকসায় চলমান উস্কানি এবং ইসরায়েলি কারাগারে ফিলিস্তিনি বন্দীদের প্রতি নিপীড়নের জবাবে এই অভিযান।

নিউজটি শেয়ার করুন

গাজার বাসিন্দাদের সরে যাওয়ার আহ্বান ইসরায়েলের

আপডেট সময় : ০৫:৩৫:১৩ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৮ অক্টোবর ২০২৩

ফিলিস্তিনের ইসলামপন্থী দল হামাসের বিরুদ্ধে বড় অভিযান চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে ইসরায়েল। এর আগে গাজার বাসিন্দাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে চলে যেতে বলেছে ইসরায়েলি সেনাবাহিনী। ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে।

এদিকে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু বলেছেন, ‘ফিলিস্তিনি ”জঙ্গিদের” বিরুদ্ধে প্রবল প্রতিশোধ নেওয়া হবে।’ তিনি গতকালের হামলাকে ‘কালো দিন’ হিসেবেও আখ্যা দিয়েছেন। অন্যতদিকে হামাসের কমান্ডার মোহাম্মদ দেইফ বলেছেন, ‘যথেষ্ট হয়েছে। আর সহ্য করা হবে না। চলমান সংঘর্ষে যেকোনো খারাপ পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য আমরা প্রস্তুত রয়েছি।’

গতকাল শনিবার হামাস ও ইসরায়েলি বাহিনীর সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় অধিকৃত গাজা উপত্যকা। কাতারভিত্তিক গণমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, গাজাভিত্তিক ফিলিস্তিনি বাহিনী হামাসের ছোঁড়া ৭ হাজার রকেটে এ পর্যন্ত ৩০০ ইসরায়েলি নিহত হয়েছে, আহত ৯ শতাধিক। ইসরায়েলের পাল্টা হামলায় অন্তত ২৩০ ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে। উভয় পক্ষ মিলিয়ে মৃতের সংখ্যা ৫০০ ছাড়িয়েছে। আহতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১৬ শ। অন্তত হাজারের বেশি ফিলিস্তিনি ইসরায়েলে প্রবেশ করেছ বলে জানা গেছে।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত তুমুল লড়াই অব্যাহত ছিল। ইসরায়েলের রাজধানী তেল আবিবসহ আরও বেশ কয়েকটি শহরে নতুন করে রকেট হামলা চালিয়েছে হামাস। ইসরায়েল সরকার জানিয়েছে, তারা অন্তত ২২ জায়গায় হামাসের যোদ্ধাদের সঙ্গে লড়াই করছে। ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী জানিয়েছে, হামাসের যোদ্ধাদের সঙ্গে লড়াইয়ের সময় গতকালই গুলিবিদ্ধ হয়ে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর ব্রিগেড কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্নেল জনাথন স্টেইনবার্গ নিহত হয়েছেন। তিনি ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর নাহাল ব্রিগেডের দায়িত্বে ছিলেন। এই ব্রিগেড ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর প্রধান পদাতিক শাখা।

গতকাল শনিবার ভোরে গাজা, তেল আবিব, অবরুদ্ধ পূর্ব জেরুজালেমে বেজে ওঠে বিমান হামলার সাইরেন। কিছু বুঝে ওঠার আগেই গাজা থেকে ছোড়া রকেটে ছেয়ে যায় আকাশ। এই হামলাকে অপারেশন ‘আল আকসা ফ্লাড’ নাম দিয়েছে হামাস। আল-আকসায় চলমান উস্কানি এবং ইসরায়েলি কারাগারে ফিলিস্তিনি বন্দীদের প্রতি নিপীড়নের জবাবে এই অভিযান।