ঢাকা ০৯:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

শৈলকুপায় একটি সেতু ছয়মাস ধরে ভাঙা

ঝিনাইদহ সংবাদদাতা
  • আপডেট সময় : ০৪:৫৬:১৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ নভেম্বর ২০২৩
  • / ৪৪১ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় জিকে সেচ প্রকল্পের একটি সেতু ছয়মাস ধরে ভেঙে পড়ে আছে। এতে যাতায়াতে দুর্ভোগে পড়েছে ৩০ গ্রামের মানুষ। সংস্কার বা নতুন সেতু নির্মাণ না হওয়ায় কষ্ট পোহাতে হচ্ছে তাদের। স্থানীয়দের অভিযোগ সেতুটি সংস্কারে কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেও কোনো লাভ হয়নি। তবে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানালেন দ্রুতই সেতুটি সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হবে।

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার চরপাড়া গ্রামের জিকে সেচ প্রকল্পের খালের উপর নির্মিত এই সেতু দিয়ে ঝিনাইদহ ছাড়াও কুষ্টিয়া ও রাজবাড়ির জেলার ৩০ গ্রামের মানুষের যাতায়াত। প্রায় ছয় মাস আগে জরাজীর্ণ এ সেতুটি ভেঙে পড়ে। এরপর আর সংস্কার হয়নি। যে কারণে পাশেই বাঁশের সাঁকো বানিয়ে যাতায়াত করছে স্থানীয়রা। তবে যানবাহন চলাচল করতে না পারায় প্রায় ৫ কিলোমিটার ঘুরে উপজেলা সদরে যেতে হচ্ছে এলাকাবাসীকে। এতে ভোগান্তি যেমন বেড়েছে তেমনি মানুষকে গুণতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া।

সেতুটি দ্রুত সংস্কার অথবা নতুন একটি সেতু নির্মাণ করার দাবি জানিয়েছে এলাকাবাসী। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি জানালেন, সেতুটি সংস্কারে পানি উন্নয়বোর্ডের কর্মকর্তাদের জানিয়েও কোন কাজ হয়নি। সেতুটি নির্মাণের জন্য অর্থ বরাদ্দ চেয়ে সদরদপ্তরে চিঠি দিয়েছে স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড।

নিউজটি শেয়ার করুন

শৈলকুপায় একটি সেতু ছয়মাস ধরে ভাঙা

আপডেট সময় : ০৪:৫৬:১৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ নভেম্বর ২০২৩

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় জিকে সেচ প্রকল্পের একটি সেতু ছয়মাস ধরে ভেঙে পড়ে আছে। এতে যাতায়াতে দুর্ভোগে পড়েছে ৩০ গ্রামের মানুষ। সংস্কার বা নতুন সেতু নির্মাণ না হওয়ায় কষ্ট পোহাতে হচ্ছে তাদের। স্থানীয়দের অভিযোগ সেতুটি সংস্কারে কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন করেও কোনো লাভ হয়নি। তবে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানালেন দ্রুতই সেতুটি সংস্কারের উদ্যোগ নেয়া হবে।

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার চরপাড়া গ্রামের জিকে সেচ প্রকল্পের খালের উপর নির্মিত এই সেতু দিয়ে ঝিনাইদহ ছাড়াও কুষ্টিয়া ও রাজবাড়ির জেলার ৩০ গ্রামের মানুষের যাতায়াত। প্রায় ছয় মাস আগে জরাজীর্ণ এ সেতুটি ভেঙে পড়ে। এরপর আর সংস্কার হয়নি। যে কারণে পাশেই বাঁশের সাঁকো বানিয়ে যাতায়াত করছে স্থানীয়রা। তবে যানবাহন চলাচল করতে না পারায় প্রায় ৫ কিলোমিটার ঘুরে উপজেলা সদরে যেতে হচ্ছে এলাকাবাসীকে। এতে ভোগান্তি যেমন বেড়েছে তেমনি মানুষকে গুণতে হচ্ছে অতিরিক্ত ভাড়া।

সেতুটি দ্রুত সংস্কার অথবা নতুন একটি সেতু নির্মাণ করার দাবি জানিয়েছে এলাকাবাসী। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি জানালেন, সেতুটি সংস্কারে পানি উন্নয়বোর্ডের কর্মকর্তাদের জানিয়েও কোন কাজ হয়নি। সেতুটি নির্মাণের জন্য অর্থ বরাদ্দ চেয়ে সদরদপ্তরে চিঠি দিয়েছে স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ড।