ঢাকা ০৯:১০ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ নভেম্বর ২০২৩, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

ইসরায়েলের যুদ্ধাপরাধের তদন্ত চায় বাংলাদেশসহ ৫ দেশ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৭:৫৬:২৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ নভেম্বর ২০২৩
  • / ৩৩৮ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডি অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

গাজায় ইসরায়েলের যুদ্ধাপরাধ ও ফিলিস্তিনের পরিস্থিতির তদন্ত চেয়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) আবেদন করেছে বাংলাদেশসহ পাঁচটি দেশ। গতকাল শুক্রবার এক বিবৃতিতে বিষয়টি জানিয়েছেন আইসিসির প্রসিকিউটর করিম খান।

এতে বলা হয় বাংলাদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা, বলিভিয়া, কমোরোস ও জিবুতির প্রতিনিধিদের এই যৌথ আবেদন গ্রহণ করেছে আইসিসি। যদিও ইসরায়েল আইসিসির সদস্য নয় এবং এখন পর্যন্ত এই আদালতকে স্বীকৃতি দেয়নি। কিন্তু ফিলিস্তিন আইসিসির সদস্য। তাই কেউ দেশটিতে হামলা চালালে তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করতে পারবে আইসিসি।

তবে, ২০১৪ সালের পর থেকে ফিলিস্তিনের সার্বিক পরিস্থিতি ও সেখানে ইসরায়েলের যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ নিয়ে আইসিসির একটি তদন্ত চলমান রয়েছে। তাই ৫টি দেশের শুক্রবারের এই আবেদন বাস্তবে সীমিত প্রভাব ফেলবে বলে জানান বিশেষজ্ঞরা।

আইসিসির প্রসিকিউটর করিম খান জানিয়েছেন, ২০০২ সালে যে রোমান সংবিধির ওপর ভিত্তি করে আইসিসি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, সেই সংবিধি অনুযায়ী কোনো সদস্যরাষ্ট্র যদি বাইরের কোনো রাষ্ট্রের হামলার শিকার হয় এবং ওই হামলাকারী রাষ্ট্র যদি আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত সনদে স্বাক্ষরকারী কিংবা স্বীকৃতি দানকারী দেশ না ও হয়— তাহলেও ওই রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে তদন্ত করতে পারবে আইসিসি।

ইউক্রেনীয় শিশুদের জোরপূর্বক রাশিয়ায় নিয়ে যাওয়ায় গত বছর রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছিল আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত। যদিও রাশিয়া এই আদালতের সদস্য নয়। তবে যেসব দেশ এটির সদস্য— সেসব দেশে যদি পুতিন যান তাহলে তাকে গ্রেপ্তার করে আদালতের হাতে সোপর্দ করতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ইসরায়েলের যুদ্ধাপরাধের তদন্ত চায় বাংলাদেশসহ ৫ দেশ

আপডেট সময় : ০৭:৫৬:২৯ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ নভেম্বর ২০২৩

গাজায় ইসরায়েলের যুদ্ধাপরাধ ও ফিলিস্তিনের পরিস্থিতির তদন্ত চেয়ে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) আবেদন করেছে বাংলাদেশসহ পাঁচটি দেশ। গতকাল শুক্রবার এক বিবৃতিতে বিষয়টি জানিয়েছেন আইসিসির প্রসিকিউটর করিম খান।

এতে বলা হয় বাংলাদেশ, দক্ষিণ আফ্রিকা, বলিভিয়া, কমোরোস ও জিবুতির প্রতিনিধিদের এই যৌথ আবেদন গ্রহণ করেছে আইসিসি। যদিও ইসরায়েল আইসিসির সদস্য নয় এবং এখন পর্যন্ত এই আদালতকে স্বীকৃতি দেয়নি। কিন্তু ফিলিস্তিন আইসিসির সদস্য। তাই কেউ দেশটিতে হামলা চালালে তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করতে পারবে আইসিসি।

তবে, ২০১৪ সালের পর থেকে ফিলিস্তিনের সার্বিক পরিস্থিতি ও সেখানে ইসরায়েলের যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ নিয়ে আইসিসির একটি তদন্ত চলমান রয়েছে। তাই ৫টি দেশের শুক্রবারের এই আবেদন বাস্তবে সীমিত প্রভাব ফেলবে বলে জানান বিশেষজ্ঞরা।

আইসিসির প্রসিকিউটর করিম খান জানিয়েছেন, ২০০২ সালে যে রোমান সংবিধির ওপর ভিত্তি করে আইসিসি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, সেই সংবিধি অনুযায়ী কোনো সদস্যরাষ্ট্র যদি বাইরের কোনো রাষ্ট্রের হামলার শিকার হয় এবং ওই হামলাকারী রাষ্ট্র যদি আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত সনদে স্বাক্ষরকারী কিংবা স্বীকৃতি দানকারী দেশ না ও হয়— তাহলেও ওই রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে তদন্ত করতে পারবে আইসিসি।

ইউক্রেনীয় শিশুদের জোরপূর্বক রাশিয়ায় নিয়ে যাওয়ায় গত বছর রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছিল আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত। যদিও রাশিয়া এই আদালতের সদস্য নয়। তবে যেসব দেশ এটির সদস্য— সেসব দেশে যদি পুতিন যান তাহলে তাকে গ্রেপ্তার করে আদালতের হাতে সোপর্দ করতে হবে।