০৪:৩৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিএনপি ও সমমনা দলগুলোর ডাকে ৪৮ ঘণ্টার হরতাল শুরু

সংসদ নির্বাচনের জন্য ঘোষিত তফসিল বাতিলের দাবিতে বিএনপি ও সমমনা দলগুলোর ডাকে আজ রোববার (১৯ নভেম্বর) সকাল ৬টা থেকে ৪৮ ঘণ্টার হরতাল শুরু হয়েছে, যা শেষ হবে মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) সকাল ৬টায়। এর আগে ক্ষমতাসীনদের পদত্যাগ ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের হরতালসহ পাঁচ দফা অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে দলগুলো। বিক্ষিপ্ত পিকেটিং ও বিক্ষোভ মিছিলের মধ্যে দিয়ে রজাধানীর বাইরেও চলছে হরতাল। নাটোর, জয়পুরহাট ও ফেনীতে বাস, কাভার্ডভ্যান ও পিক আপ ভ্যানে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় আজও তালাবদ্ধ রয়েছে। দলের কোনো নেতা-কর্মীকে কার্যালয়ের আশপাশে দেখা যায়নি। বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য মোতায়েন রয়েছে নয়াপল্টন এলাকায়। এদিকে হরতাল সমর্থনে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ঝটিকা মিছিল করেছে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

হরতালের শুরুতে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের সুবিদবাজারে লেগুনা ভাংচুর করে পিকেটাররা। এছাড়া, নগরের বিভিন্ন স্থানে প্যাকেটিংয়ের চেষ্টা করে বিএনপি নেতাকর্মীরা।হরতালের সমর্থনে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে বিক্ষোভ মিছিল করে ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপি।

ঢাকা- আরিচা মহাসড়কের পুখুরিয়া ও মানিকগঞ্জ-সিংগাইর-হেমায়েতপুর আঞ্চলিক মহাসড়কে ডেভলতুলি এলাকায় হরতালের সমর্থনে মিছিল করে বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

মিছিল করেছে মেহেরপুর জেলা বিএনপিও। নাটোর থেকে দূরপাল্লার কোন বাস ছেড়ে যায়নি। শনিবার রাতে শহরের ভবানীগঞ্জ মোড়ে দাঁড়িয়ে থাকা মুক্তি সেনা পরিবহনের একটি বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। জয়পুরহাট-বগুড়া বাইপাস সড়কের দাদড়া জন্তিগ্রাম বিনশীরা ব্রিজ এলাকায় আগুন দেয়া হয় একটি পিকআপ ভ্যানে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের লালপোল এলাকায় মালবাহী কাভার্ডভ্যানে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। যশোরে বিএনপি নেতা তরিকুল ইসলামের বাসভবনে বেশ কয়েকটি ককটেল নিক্ষেপ করে দুর্বত্তরা।

অবরোধের ন্যায় হরতালের মধ্যেও আতঙ্ক আর যাত্রী সংকটের কারণে চলছে না দূরপাল্লার বাস। রাজধানীতে গণপরিবহন চললেও সংখ্যায় কম। অফিস খোলা থাকায় ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে অফিসগামী যাত্রীদের।

রোববার (১৯ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত রাজধানীর কল্যাণপুর, টেকনিক্যাল, গাবতলী আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল সরেজমিনে দেখা যায়, সড়কে চাপ কম যানবাহনের। পুলিশের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেলেও যানবাহনের চাপ নেই সিগন্যালগুলোতে।

৪৮ ঘণ্টার দেশব্যাপী সর্বাত্মক হরতাল সমর্থনে ফকিরাপুলে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল মিছিল করেছে। এতে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রদলের সাবেক নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ইকবাল হোসেন শ্যামল। মিছিলে আরও নেতৃত্ব দেন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি মারুফ এলাহী রনি ও শ্যামল মালুম।

মিছিলে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান শাওন, সহ-সাধারণ সম্পাদক কাজী সামসুল হুদা, নাসরিন রহমান পপি, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক দেওয়ান পলাশ, ছাত্রী বিষয়ক সম্পাদিকা মানসুরা আলম।

হরতালের প্রথম দিনে মিছিল ও পিকেটিং করেছে তেজগাঁও কলেজ ছাত্রদল নেতা-কর্মীরা। রোববার (১৯ নভেম্বর) রাজধানীর তেজগাঁও রেল স্টেশন এলাকায় সড়ক ও রেল লাইন অবরোধ করে এ কর্মসূচি পালন করে তারা।

সংগঠনের সভাপতি ফয়সাল দেওয়ান ও সাধারণ সম্পাদক মো. বেলাল হোসেন খানের নেতৃত্বে মিছিলে আরও উপস্থিত ছিলেন- এস. আই. জুয়েল শিকদার, নাঈমুল ইসলাম নাজিম, মামুন মালতিয়া, নাজমুল হুদা রাকিব, মেশকাত হোসেন, নাহিদুল ইসলাম বেপারী, অসিম মাহমুদ, আনোয়ার হোসেন রানা, আব্দুর রহমান, শাকিল মাহমুদ, সাজ্জাদ হোসেন শাকিল, মিনহাজুল ইসলাম আবেদিন, হাসনাইন আহমেদ, রায়হান, সজিব আহমেদ, শরীফুল, শিকদার শাহিন, নাজমুল হাসান পাপন, সজিব আহমেদ হৃদয়, আতিকুর রহমান শামিমসহ আরও অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মী।

ধানমন্ডি সিটি কলেজ এলাকায় স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন রিন্টুসহ কেন্দ্রী কমিটির সদস্যরা মিছিল করেন। হরতাল সফল করতে সকালে গ্রীনরোডে মিছিল করেছে স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহসভাপতি ইয়াসিন আলীসহ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। এসময় তারা তফসিল বাতিল করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি জানান।

জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি মুহা. দেলাওয়ার হোসেন বলেছেন, দেশে আবারও আরেকটি প্রহসনের নির্বাচন করার পাঁয়তারা করছে সরকার। আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশন প্রহসনের তফসিল ঘোষণা করেছে। ইতোমধ্যেই জনগণ তা প্রত্যাখ্যান করেছে।

দেলাওয়ার হোসেন আরও বলেন, অবিলম্বে এই তফসিল বাতিল করুন। একটি অবাধ, সুষ্ঠু নিরপেক্ষ এবং অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি করুন। পুনরায় নতুন তফসিল ঘোষণা করুন। না হলে জনগণ যেভাবে জেগে উঠেছে, যেভাবে গণরোষ তৈরি হয়েছে, এই গণরোষে ভেসে যাবেন।

রাজধানীর মতিঝিল এলাকায় হরতালের সমর্থনে মিছিল ও পিকেটিং করেছে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ জামায়াতের নেতা-কর্মীরা। কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি অধ্যাপক ড. মু. আবদুল মান্নানের নেতৃত্বে এ সময় আরও উপস্থিত ছিল ঢাকা মহানগর দক্ষিণের মজলিসে শূরা সদস্য আবু আম্মার, গিয়াস উদ্দিন, নুর উদ্দিন ও মুতাসিম বিল্লাহসহ জামায়াত ও শিবিরের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।

একই দাবিতে ও হরতালের সমর্থনে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ধোলাইপাড় মোড় এলাকায় মিছিল ও পিকেটিং করেছে ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের নেতাকর্মীরা। ঢাকা মহানগর দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য ড. মোবারক হোসাইনের নেতৃত্বে সেখানে আরও উপস্থিত ছিল মহানগরী মজলিসে শূরা সদস্য এম এ রহিম, এস বিল্ললাহ, নওশেদ ফারুক, মহিউদ্দিন, মতিউর রহমানসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা।

জামায়াতে ইসলামীর ৪৮ ঘণ্টা হরতালের ১ম দিনে রাজধানীর ডেমরায় মহাসড়ক অবরোধ করছে জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগর দক্ষিণের নেতাকর্মীরা। কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য অধ্যাপক মোকাররম হোসাইন খানের নেতৃত্বে এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের মজলিসে শুরা সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ আলী, আবু জয়নব, হেলাল উদদীন, আবুল বাসার, মোজাফফর হোসাইন, মাও দেলোয়ার হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার তমিজ উদ্দীন, জসিম উদদীন ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের নেতা সৌরভ ও রাকিব ও শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন নেতা জাহাঙ্গীর আলমসহ জামায়াতের স্থানীয় নেতারা।

হরতালের প্রথম দিনে কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও মহানগর দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য শামসুর রহমানের নেতৃত্বে এ দিন সকালে বাসাবো বিশ্বরোড এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করা হয়।

হরতালের সমর্থনে রাজধানীর হাজারীবাগ এলাকায়ও মিছিল ও পিকেটিং করেছে জামায়াতের নেতাকর্মীরা। ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য অধ্যাপক নুরনবী মানিকের নেতৃত্বে আরও উপস্থিত ছিল ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ মজলিসে শূরা সদস্য শহিদুল ইসলাম সোহেল, মুজিবুর রহমান খান ও শ্রমিক নেতা সাইফুল ইসলাম।

গতকাল রাত থেকেই রাজধানীসহ সারাদেশে শুরু হয়েছে পিকেটিং, বাসসহ পরিবহন পোড়ানোর মতো ঘটনা। যার প্রভাবে খা খা করছে গাবতলী আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল।

গত ১৫ ঘণ্টায় ৬টি যাত্রীবাহী বাসে আগুনের সংবাদ পেয়েছে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স। এছাড়া একই সময়ের মধ্যে ১১টি স্থানে আগুন লাগার সংবাদ পায় ফায়ার সার্ভিস। রোববার (১৯ নভেম্বর) সকালে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মিডিয়া সেলের কর্মকর্তা তালহা বিন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, শনিবার (১৮ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬টা থেকে আজ (রোববার) সকাল ৯টা পর্যন্ত ১১ স্থানে আগুন দেওয়ার সংবাদ পায় ফায়ার সার্ভিস। এ ঘটনায় ১১টি যানবাহনে আগুনের ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে ঢাকা সিটিতে ৫টি, রাজশাহী বিভাগে (নাটোর, বগুড়া, জয়পুরহাট) ৩টি, চট্টগ্রাম বিভাগে (ফেনী, কুমিল্লা) ২টি, ময়মনসিংহ বিভাগে (জামালপুর) ১টি ঘটনা ঘটে।

তিনি আরও জানান, আগুনে ৬টি বাস, ১টি কাভার্ড ভ্যান, ১টি ট্রাক, ১টি সিএনজি, ১টি পিকআপ, ১টি ট্রেন (তিনটি বগি) পুড়ে যায়। এই আগুন নির্বাপণ করতে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর ২০ ইউনিট ও ১০৭ জন জনবল কাজ করে।

গতকাল শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা তারাকান্দিগামী আন্তঃনগর যমুনা এক্সপ্রেস ট্রেন সরিষাবাড়ি স্টেশনে এসে পৌছায়। যাত্রাবিরতি শেষে রাত ১টা ১০ মিনিটের দিকে তারাকান্দি অভিমুখে ট্রেনটি যাত্রা শুরু করে। ট্রেনটি চলতে শুরু করার সাথে সাথে যাত্রীরা চিৎকার দিতে থাকে। এ সময় ট্রেনের পেছনের দিকে দুটি কামরায় আগুন লাগা অবস্থায় টেনটি প্ল্যাটফর্ম অতিক্রম করতে থাকে। পরে অগ্নিকাণ্ডের কারণে চালক ট্রেন থামিয়ে দেন।

নেত্রকোনার কেন্দুয়া চিরাংবাজারে একটি পিকআপ ভ্যানে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল শনিবার (১৮ নভেম্বর) দিনগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। পিকআপ ভ্যানের মালিক মুনসুর মিয়া বলেন, ‘পিকআপ ভ্যান দিয়ে হাঁস নিয়ে যাচ্ছিলাম। পথে কেন্দুয়া চিরংবাজারে আসতেই ১০ থেকে ১২ জনের একটি দল চালককে নামিয়ে পিকআপ ভ্যানে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে স্থানীয়রা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।’

কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এনামুল হক তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ ঘটনায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।’

রাজধানীর পুরান ঢাকার কাজী আলাউদ্দিন রোডে একটি সিএনজিচালিত অটোরকিশায় ককটেল নিক্ষেপ করেছে দুর্বৃত্তরা। এতে তাৎক্ষণিক অটোরিকশাটিতে আগুন ধরে যায়।

বিএনপি ও সমমনা দলগুলোর ডাকা ৪৮ ঘণ্টার হরতালের প্রথম দিন আজ রোববার (১৯ নভেম্বর) সকালে কাজী আলাউদ্দিন রোডের ওয়ান স্টার হোটেলের পাশে এ ঘটনা ঘটে। আজ সকালে ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের মিডিয়া সেলের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহজাহান সিকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বরিশালের কাশিপুর এলাকায় ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে মিছিল করেছেন মহানগর বিএনপির নেতাকর্মীরা। ৪৮ ঘণ্টা হরতালের প্রথম দিন আজ রোববার (১৯ নভেম্বর) সকালে মিছিলের পাশাপাশি তারা মহাসড়কে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেন। বরিশাল মহানগরের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আফরোজা নাসরিনের নেতৃত্বে এ মিছিল বের হয়। এ সময় হরতালের সমর্থনে নানা স্লোগান দেন নেতাকর্মীরা। একপর্যায়ে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে মহাসড়কেই বিক্ষোভ করেন তারা।

সংসদ নির্বাচনের জন্য ঘোষিত তফসিল বাতিলের দাবিতে বিএনপি ও সমমনা দলগুলোর ডাকে আজ রোববার (১৯ নভেম্বর) সকাল ৬টা থেকে ৪৮ ঘণ্টার হরতাল শুরু হয়েছে। হরতালের সমর্থনে বন্দর নগরী চট্টগ্রামের বিভিন্ন স্থানে মিছিল করেছে বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। তবে, কোথাও গাড়িতে অগ্নিসংযোগ বা ভাঙচুরের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

আজ সকালে নগরীর চকবাজার এলাকায় মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আবদুল মান্নান, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন ও এমদাদুল হক বাদশার নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল করে বিএনপি ও যুবদলের নেতাকর্মীরা। মিছিলটি নগরীর কয়েকটি সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এ ছাড়া দক্ষিণ জেলা বিএনপির উদ্যোগে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে হরতালের সমর্থনে মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সময় মহাসড়কে যান চলাচলে বাধা দেয় হরতালের সমর্থকরা। এর আগে শনিবার রাতে চট্টগ্রামের বহদ্দারহাটে একটি বাস ও মইজ্জারটেক এলাকায় একটি পণ্যবাহী ট্রাকসহ তিনটি গাড়িতে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

এদিকে, হরতালের কারণে নগরীর সড়ক-মহাসড়ক ছিল অনেকটা ফাঁকা। স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় যানবাহনের সংখ্যা ছিল হাতে গোনা। তবে, রাস্তায় রিকশা ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা রয়েছে। জেলা থেকে দূরপাল্লার কোনো পরিবহণ ছাড়েনি। অন্যদিকে, বিরোধী দলগুলোর কর্মসূচিকে ঘিরে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে পুলিশ। নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান করছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

বিএনপির ডাকা ৪৮ ঘণ্টার হরতালের সমর্থনে নোয়াখালীতে ঝটিকা মিছিল করেছে নেতাকর্মীরা। এসময় তারা কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় এবং সড়কে পেট্রোল ঢেলে আগুন দেয়। রোববার (১৯ নভেম্বর) ভোর সাড়ে ৬টার দিকে জেলা শহরের বিশ্বনাথ এলাকা থেকে মিছিলটি বের হয়।

জানা গেছে, নোয়াখালী জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান মো. নোমান ও জেলা সেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে জেলা শহরের বিশ্বনাথ এলাকায় রোববার ভোরে একটি ঝটিকা মিছিল বের করে জেলা বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এসময় ওই এলাকায় কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টির চেষ্টাও করা হয় এবং পেট্রোল ঢেলে সড়কে আগুন দেওয়া হয়। অবশ্য খুব অল্প সময়ের ব্যবধানে মিছিলটি কয়েকশ গজ গিয়ে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায় এবং দলটির নেতাকর্মীরা স্থান ত্যাগ করে চলে যান।

নাটোরে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শহরের ভবানীগঞ্জ এলাকায় নাটোর-বগুড়া মহাসড়কের সরকারি গণগ্রন্থাগারের সামনে গতকাল শনিবার (১৮ নভেম্বর) দিনগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আগুনে বাসটি পুড়ে গেছে। তবে, এতে কেউ হতাহত হননি।

রংপুর মহানগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সদস্য সচিব আব্দুস সালাম ও কর্মী ফারুক মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রোববার (১৯ নভেম্বর) সকালে হরতালের সমর্থনে নগরীর কলেজ রোড চারতলা মোড় এলাকায় মিছিলের সময় পুলিশ ধাওয়া করে ওই দুইজনকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মহানগর বিএনপির মিডিয়া সেলের মুখপাত্র ও মহানগর যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মুহাম্মদ জহির আলম নয়ন।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী গত বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) বিকেলে ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে নতুন করে হরতাল কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

আগের দিন বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় জাতির উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল তফসিল ঘোষণা করেন। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ তফসিলকে স্বাগত জানালেও বিএনপিসহ সমমনা দল ও তাদের জোট এটিকে প্রত্যাখ্যান করেছে। এ তফসিল বাতিলের দাবিতে বিএনপি ৪৮ ঘণ্টার হরতাল ডেকেছে। এর আগে মহাসমাবেশে বাধা ও নেতাকর্মী গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে ২৯ অক্টোবর সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন করে দলটি।

গত ৩১ অক্টোবর সকাল ৬টা থেকে প্রথম দফায় সারা দেশে তিন দিনের সড়ক, রেল ও নৌপথ অবরোধ শুরু করে বিএনপিসহ বেশ কয়েকটি বিরোধী দল। তিন দিনের অবরোধের শেষ দিন ২ নভেম্বর বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী ফের অবরোধ কর্মসূচির ঘোষণা দেন। সেই ঘোষণা অনুযায়ী, ৫ নভেম্বর সকাল ৬টা থেকে ৪৮ ঘণ্টা অবরোধ শুরু হয়। এরপর তৃতীয় দফায় ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ ৮ নভেম্বর শুরু হয়ে ১০ নভেম্বর সকাল ৬টায় শেষ হয়। এরপর চতুর্থ দফার অবরোধ শুরু হয় ১২ নভেম্বর সকাল ৬টা থেকে, যা শেষ হয় মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) সকাল ৬টায়। পরে ১৫ নভেম্বর সকাল ৬টা থেকে পঞ্চম দফায় ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচি পালন করে দলটি।

বিএনপি ও সমমনা দলগুলোর ডাকে ৪৮ ঘণ্টার হরতাল শুরু

আপডেট : ০৭:০০:১৮ পূর্বাহ্ন, রোববার, ১৯ নভেম্বর ২০২৩

সংসদ নির্বাচনের জন্য ঘোষিত তফসিল বাতিলের দাবিতে বিএনপি ও সমমনা দলগুলোর ডাকে আজ রোববার (১৯ নভেম্বর) সকাল ৬টা থেকে ৪৮ ঘণ্টার হরতাল শুরু হয়েছে, যা শেষ হবে মঙ্গলবার (২১ নভেম্বর) সকাল ৬টায়। এর আগে ক্ষমতাসীনদের পদত্যাগ ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের হরতালসহ পাঁচ দফা অবরোধ কর্মসূচি পালন করেছে দলগুলো। বিক্ষিপ্ত পিকেটিং ও বিক্ষোভ মিছিলের মধ্যে দিয়ে রজাধানীর বাইরেও চলছে হরতাল। নাটোর, জয়পুরহাট ও ফেনীতে বাস, কাভার্ডভ্যান ও পিক আপ ভ্যানে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয় আজও তালাবদ্ধ রয়েছে। দলের কোনো নেতা-কর্মীকে কার্যালয়ের আশপাশে দেখা যায়নি। বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য মোতায়েন রয়েছে নয়াপল্টন এলাকায়। এদিকে হরতাল সমর্থনে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ঝটিকা মিছিল করেছে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

হরতালের শুরুতে সিলেট-সুনামগঞ্জ সড়কের সুবিদবাজারে লেগুনা ভাংচুর করে পিকেটাররা। এছাড়া, নগরের বিভিন্ন স্থানে প্যাকেটিংয়ের চেষ্টা করে বিএনপি নেতাকর্মীরা।হরতালের সমর্থনে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে বিক্ষোভ মিছিল করে ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপি।

ঢাকা- আরিচা মহাসড়কের পুখুরিয়া ও মানিকগঞ্জ-সিংগাইর-হেমায়েতপুর আঞ্চলিক মহাসড়কে ডেভলতুলি এলাকায় হরতালের সমর্থনে মিছিল করে বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

মিছিল করেছে মেহেরপুর জেলা বিএনপিও। নাটোর থেকে দূরপাল্লার কোন বাস ছেড়ে যায়নি। শনিবার রাতে শহরের ভবানীগঞ্জ মোড়ে দাঁড়িয়ে থাকা মুক্তি সেনা পরিবহনের একটি বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। জয়পুরহাট-বগুড়া বাইপাস সড়কের দাদড়া জন্তিগ্রাম বিনশীরা ব্রিজ এলাকায় আগুন দেয়া হয় একটি পিকআপ ভ্যানে। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের লালপোল এলাকায় মালবাহী কাভার্ডভ্যানে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। যশোরে বিএনপি নেতা তরিকুল ইসলামের বাসভবনে বেশ কয়েকটি ককটেল নিক্ষেপ করে দুর্বত্তরা।

অবরোধের ন্যায় হরতালের মধ্যেও আতঙ্ক আর যাত্রী সংকটের কারণে চলছে না দূরপাল্লার বাস। রাজধানীতে গণপরিবহন চললেও সংখ্যায় কম। অফিস খোলা থাকায় ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে অফিসগামী যাত্রীদের।

রোববার (১৯ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৮টা থেকে ১০টা পর্যন্ত রাজধানীর কল্যাণপুর, টেকনিক্যাল, গাবতলী আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল সরেজমিনে দেখা যায়, সড়কে চাপ কম যানবাহনের। পুলিশের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেলেও যানবাহনের চাপ নেই সিগন্যালগুলোতে।

৪৮ ঘণ্টার দেশব্যাপী সর্বাত্মক হরতাল সমর্থনে ফকিরাপুলে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল মিছিল করেছে। এতে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রদলের সাবেক নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ইকবাল হোসেন শ্যামল। মিছিলে আরও নেতৃত্ব দেন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি মারুফ এলাহী রনি ও শ্যামল মালুম।

মিছিলে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান শাওন, সহ-সাধারণ সম্পাদক কাজী সামসুল হুদা, নাসরিন রহমান পপি, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক দেওয়ান পলাশ, ছাত্রী বিষয়ক সম্পাদিকা মানসুরা আলম।

হরতালের প্রথম দিনে মিছিল ও পিকেটিং করেছে তেজগাঁও কলেজ ছাত্রদল নেতা-কর্মীরা। রোববার (১৯ নভেম্বর) রাজধানীর তেজগাঁও রেল স্টেশন এলাকায় সড়ক ও রেল লাইন অবরোধ করে এ কর্মসূচি পালন করে তারা।

সংগঠনের সভাপতি ফয়সাল দেওয়ান ও সাধারণ সম্পাদক মো. বেলাল হোসেন খানের নেতৃত্বে মিছিলে আরও উপস্থিত ছিলেন- এস. আই. জুয়েল শিকদার, নাঈমুল ইসলাম নাজিম, মামুন মালতিয়া, নাজমুল হুদা রাকিব, মেশকাত হোসেন, নাহিদুল ইসলাম বেপারী, অসিম মাহমুদ, আনোয়ার হোসেন রানা, আব্দুর রহমান, শাকিল মাহমুদ, সাজ্জাদ হোসেন শাকিল, মিনহাজুল ইসলাম আবেদিন, হাসনাইন আহমেদ, রায়হান, সজিব আহমেদ, শরীফুল, শিকদার শাহিন, নাজমুল হাসান পাপন, সজিব আহমেদ হৃদয়, আতিকুর রহমান শামিমসহ আরও অর্ধশতাধিক নেতা-কর্মী।

ধানমন্ডি সিটি কলেজ এলাকায় স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন রিন্টুসহ কেন্দ্রী কমিটির সদস্যরা মিছিল করেন। হরতাল সফল করতে সকালে গ্রীনরোডে মিছিল করেছে স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহসভাপতি ইয়াসিন আলীসহ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। এসময় তারা তফসিল বাতিল করে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবি জানান।

জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি মুহা. দেলাওয়ার হোসেন বলেছেন, দেশে আবারও আরেকটি প্রহসনের নির্বাচন করার পাঁয়তারা করছে সরকার। আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশন প্রহসনের তফসিল ঘোষণা করেছে। ইতোমধ্যেই জনগণ তা প্রত্যাখ্যান করেছে।

দেলাওয়ার হোসেন আরও বলেন, অবিলম্বে এই তফসিল বাতিল করুন। একটি অবাধ, সুষ্ঠু নিরপেক্ষ এবং অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের পরিবেশ তৈরি করুন। পুনরায় নতুন তফসিল ঘোষণা করুন। না হলে জনগণ যেভাবে জেগে উঠেছে, যেভাবে গণরোষ তৈরি হয়েছে, এই গণরোষে ভেসে যাবেন।

রাজধানীর মতিঝিল এলাকায় হরতালের সমর্থনে মিছিল ও পিকেটিং করেছে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ জামায়াতের নেতা-কর্মীরা। কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সহকারী সেক্রেটারি অধ্যাপক ড. মু. আবদুল মান্নানের নেতৃত্বে এ সময় আরও উপস্থিত ছিল ঢাকা মহানগর দক্ষিণের মজলিসে শূরা সদস্য আবু আম্মার, গিয়াস উদ্দিন, নুর উদ্দিন ও মুতাসিম বিল্লাহসহ জামায়াত ও শিবিরের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা।

একই দাবিতে ও হরতালের সমর্থনে রাজধানীর যাত্রাবাড়ী ধোলাইপাড় মোড় এলাকায় মিছিল ও পিকেটিং করেছে ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের নেতাকর্মীরা। ঢাকা মহানগর দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য ড. মোবারক হোসাইনের নেতৃত্বে সেখানে আরও উপস্থিত ছিল মহানগরী মজলিসে শূরা সদস্য এম এ রহিম, এস বিল্ললাহ, নওশেদ ফারুক, মহিউদ্দিন, মতিউর রহমানসহ অন্যান্য নেতাকর্মীরা।

জামায়াতে ইসলামীর ৪৮ ঘণ্টা হরতালের ১ম দিনে রাজধানীর ডেমরায় মহাসড়ক অবরোধ করছে জামায়াতে ইসলামী ঢাকা মহানগর দক্ষিণের নেতাকর্মীরা। কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য অধ্যাপক মোকাররম হোসাইন খানের নেতৃত্বে এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের মজলিসে শুরা সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ আলী, আবু জয়নব, হেলাল উদদীন, আবুল বাসার, মোজাফফর হোসাইন, মাও দেলোয়ার হোসেন, ইঞ্জিনিয়ার তমিজ উদ্দীন, জসিম উদদীন ও ইসলামী ছাত্রশিবিরের ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের নেতা সৌরভ ও রাকিব ও শ্রমিক কল্যাণ ফেডারেশন নেতা জাহাঙ্গীর আলমসহ জামায়াতের স্থানীয় নেতারা।

হরতালের প্রথম দিনে কেন্দ্রীয় মজলিসে শূরা সদস্য ও মহানগর দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য শামসুর রহমানের নেতৃত্বে এ দিন সকালে বাসাবো বিশ্বরোড এলাকায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করা হয়।

হরতালের সমর্থনে রাজধানীর হাজারীবাগ এলাকায়ও মিছিল ও পিকেটিং করেছে জামায়াতের নেতাকর্মীরা। ঢাকা মহানগরী দক্ষিণের কর্মপরিষদ সদস্য অধ্যাপক নুরনবী মানিকের নেতৃত্বে আরও উপস্থিত ছিল ঢাকা মহানগরী দক্ষিণ মজলিসে শূরা সদস্য শহিদুল ইসলাম সোহেল, মুজিবুর রহমান খান ও শ্রমিক নেতা সাইফুল ইসলাম।

গতকাল রাত থেকেই রাজধানীসহ সারাদেশে শুরু হয়েছে পিকেটিং, বাসসহ পরিবহন পোড়ানোর মতো ঘটনা। যার প্রভাবে খা খা করছে গাবতলী আন্তঃজেলা বাস টার্মিনাল।

গত ১৫ ঘণ্টায় ৬টি যাত্রীবাহী বাসে আগুনের সংবাদ পেয়েছে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স। এছাড়া একই সময়ের মধ্যে ১১টি স্থানে আগুন লাগার সংবাদ পায় ফায়ার সার্ভিস। রোববার (১৯ নভেম্বর) সকালে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স অধিদপ্তরের মিডিয়া সেলের কর্মকর্তা তালহা বিন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, শনিবার (১৮ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬টা থেকে আজ (রোববার) সকাল ৯টা পর্যন্ত ১১ স্থানে আগুন দেওয়ার সংবাদ পায় ফায়ার সার্ভিস। এ ঘটনায় ১১টি যানবাহনে আগুনের ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে ঢাকা সিটিতে ৫টি, রাজশাহী বিভাগে (নাটোর, বগুড়া, জয়পুরহাট) ৩টি, চট্টগ্রাম বিভাগে (ফেনী, কুমিল্লা) ২টি, ময়মনসিংহ বিভাগে (জামালপুর) ১টি ঘটনা ঘটে।

তিনি আরও জানান, আগুনে ৬টি বাস, ১টি কাভার্ড ভ্যান, ১টি ট্রাক, ১টি সিএনজি, ১টি পিকআপ, ১টি ট্রেন (তিনটি বগি) পুড়ে যায়। এই আগুন নির্বাপণ করতে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স এর ২০ ইউনিট ও ১০৭ জন জনবল কাজ করে।

গতকাল শনিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা তারাকান্দিগামী আন্তঃনগর যমুনা এক্সপ্রেস ট্রেন সরিষাবাড়ি স্টেশনে এসে পৌছায়। যাত্রাবিরতি শেষে রাত ১টা ১০ মিনিটের দিকে তারাকান্দি অভিমুখে ট্রেনটি যাত্রা শুরু করে। ট্রেনটি চলতে শুরু করার সাথে সাথে যাত্রীরা চিৎকার দিতে থাকে। এ সময় ট্রেনের পেছনের দিকে দুটি কামরায় আগুন লাগা অবস্থায় টেনটি প্ল্যাটফর্ম অতিক্রম করতে থাকে। পরে অগ্নিকাণ্ডের কারণে চালক ট্রেন থামিয়ে দেন।

নেত্রকোনার কেন্দুয়া চিরাংবাজারে একটি পিকআপ ভ্যানে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গতকাল শনিবার (১৮ নভেম্বর) দিনগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। পিকআপ ভ্যানের মালিক মুনসুর মিয়া বলেন, ‘পিকআপ ভ্যান দিয়ে হাঁস নিয়ে যাচ্ছিলাম। পথে কেন্দুয়া চিরংবাজারে আসতেই ১০ থেকে ১২ জনের একটি দল চালককে নামিয়ে পিকআপ ভ্যানে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে স্থানীয়রা এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন।’

কেন্দুয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এনামুল হক তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এ ঘটনায় কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।’

রাজধানীর পুরান ঢাকার কাজী আলাউদ্দিন রোডে একটি সিএনজিচালিত অটোরকিশায় ককটেল নিক্ষেপ করেছে দুর্বৃত্তরা। এতে তাৎক্ষণিক অটোরিকশাটিতে আগুন ধরে যায়।

বিএনপি ও সমমনা দলগুলোর ডাকা ৪৮ ঘণ্টার হরতালের প্রথম দিন আজ রোববার (১৯ নভেম্বর) সকালে কাজী আলাউদ্দিন রোডের ওয়ান স্টার হোটেলের পাশে এ ঘটনা ঘটে। আজ সকালে ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের মিডিয়া সেলের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহজাহান সিকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বরিশালের কাশিপুর এলাকায় ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কে মিছিল করেছেন মহানগর বিএনপির নেতাকর্মীরা। ৪৮ ঘণ্টা হরতালের প্রথম দিন আজ রোববার (১৯ নভেম্বর) সকালে মিছিলের পাশাপাশি তারা মহাসড়কে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেন। বরিশাল মহানগরের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য আফরোজা নাসরিনের নেতৃত্বে এ মিছিল বের হয়। এ সময় হরতালের সমর্থনে নানা স্লোগান দেন নেতাকর্মীরা। একপর্যায়ে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে মহাসড়কেই বিক্ষোভ করেন তারা।

সংসদ নির্বাচনের জন্য ঘোষিত তফসিল বাতিলের দাবিতে বিএনপি ও সমমনা দলগুলোর ডাকে আজ রোববার (১৯ নভেম্বর) সকাল ৬টা থেকে ৪৮ ঘণ্টার হরতাল শুরু হয়েছে। হরতালের সমর্থনে বন্দর নগরী চট্টগ্রামের বিভিন্ন স্থানে মিছিল করেছে বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। তবে, কোথাও গাড়িতে অগ্নিসংযোগ বা ভাঙচুরের কোনো ঘটনা ঘটেনি।

আজ সকালে নগরীর চকবাজার এলাকায় মহানগর বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আবদুল মান্নান, ইয়াছিন চৌধুরী লিটন ও এমদাদুল হক বাদশার নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল করে বিএনপি ও যুবদলের নেতাকর্মীরা। মিছিলটি নগরীর কয়েকটি সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এ ছাড়া দক্ষিণ জেলা বিএনপির উদ্যোগে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে হরতালের সমর্থনে মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সময় মহাসড়কে যান চলাচলে বাধা দেয় হরতালের সমর্থকরা। এর আগে শনিবার রাতে চট্টগ্রামের বহদ্দারহাটে একটি বাস ও মইজ্জারটেক এলাকায় একটি পণ্যবাহী ট্রাকসহ তিনটি গাড়িতে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা।

এদিকে, হরতালের কারণে নগরীর সড়ক-মহাসড়ক ছিল অনেকটা ফাঁকা। স্বাভাবিক সময়ের তুলনায় যানবাহনের সংখ্যা ছিল হাতে গোনা। তবে, রাস্তায় রিকশা ও ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা রয়েছে। জেলা থেকে দূরপাল্লার কোনো পরিবহণ ছাড়েনি। অন্যদিকে, বিরোধী দলগুলোর কর্মসূচিকে ঘিরে সতর্ক অবস্থানে রয়েছে পুলিশ। নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান করছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

বিএনপির ডাকা ৪৮ ঘণ্টার হরতালের সমর্থনে নোয়াখালীতে ঝটিকা মিছিল করেছে নেতাকর্মীরা। এসময় তারা কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় এবং সড়কে পেট্রোল ঢেলে আগুন দেয়। রোববার (১৯ নভেম্বর) ভোর সাড়ে ৬টার দিকে জেলা শহরের বিশ্বনাথ এলাকা থেকে মিছিলটি বের হয়।

জানা গেছে, নোয়াখালী জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান মো. নোমান ও জেলা সেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে জেলা শহরের বিশ্বনাথ এলাকায় রোববার ভোরে একটি ঝটিকা মিছিল বের করে জেলা বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এসময় ওই এলাকায় কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্ক সৃষ্টির চেষ্টাও করা হয় এবং পেট্রোল ঢেলে সড়কে আগুন দেওয়া হয়। অবশ্য খুব অল্প সময়ের ব্যবধানে মিছিলটি কয়েকশ গজ গিয়ে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায় এবং দলটির নেতাকর্মীরা স্থান ত্যাগ করে চলে যান।

নাটোরে রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা বাসে আগুন দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। শহরের ভবানীগঞ্জ এলাকায় নাটোর-বগুড়া মহাসড়কের সরকারি গণগ্রন্থাগারের সামনে গতকাল শনিবার (১৮ নভেম্বর) দিনগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। আগুনে বাসটি পুড়ে গেছে। তবে, এতে কেউ হতাহত হননি।

রংপুর মহানগর বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সদস্য সচিব আব্দুস সালাম ও কর্মী ফারুক মিয়াকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। রোববার (১৯ নভেম্বর) সকালে হরতালের সমর্থনে নগরীর কলেজ রোড চারতলা মোড় এলাকায় মিছিলের সময় পুলিশ ধাওয়া করে ওই দুইজনকে গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মহানগর বিএনপির মিডিয়া সেলের মুখপাত্র ও মহানগর যুবদলের সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক মুহাম্মদ জহির আলম নয়ন।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী গত বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর) বিকেলে ভার্চ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে নতুন করে হরতাল কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

আগের দিন বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় জাতির উদ্দেশে দেওয়া এক ভাষণে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল তফসিল ঘোষণা করেন। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ তফসিলকে স্বাগত জানালেও বিএনপিসহ সমমনা দল ও তাদের জোট এটিকে প্রত্যাখ্যান করেছে। এ তফসিল বাতিলের দাবিতে বিএনপি ৪৮ ঘণ্টার হরতাল ডেকেছে। এর আগে মহাসমাবেশে বাধা ও নেতাকর্মী গ্রেপ্তারের প্রতিবাদে ২৯ অক্টোবর সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালন করে দলটি।

গত ৩১ অক্টোবর সকাল ৬টা থেকে প্রথম দফায় সারা দেশে তিন দিনের সড়ক, রেল ও নৌপথ অবরোধ শুরু করে বিএনপিসহ বেশ কয়েকটি বিরোধী দল। তিন দিনের অবরোধের শেষ দিন ২ নভেম্বর বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী ফের অবরোধ কর্মসূচির ঘোষণা দেন। সেই ঘোষণা অনুযায়ী, ৫ নভেম্বর সকাল ৬টা থেকে ৪৮ ঘণ্টা অবরোধ শুরু হয়। এরপর তৃতীয় দফায় ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ ৮ নভেম্বর শুরু হয়ে ১০ নভেম্বর সকাল ৬টায় শেষ হয়। এরপর চতুর্থ দফার অবরোধ শুরু হয় ১২ নভেম্বর সকাল ৬টা থেকে, যা শেষ হয় মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) সকাল ৬টায়। পরে ১৫ নভেম্বর সকাল ৬টা থেকে পঞ্চম দফায় ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ কর্মসূচি পালন করে দলটি।