০৪:৩০ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশে শ্রমিকদের ওপর সহিংসতায় আমেরিকার উদ্বেগ

বাংলাদেশে শ্রমিকদের ওপর সাম্প্রতিক সহিংসতার বিষয়ে নিন্দা ও উদ্বেগ জানিয়েছে আমেরিকা। গতকাল সোমবার মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানান মুখপাত্র ম্যাথু মিলার। এসময় শ্রমিক ও ট্রেড ইউনিয়নের ওপর চলমান দমন-পীড়ন নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি।

বাংলাদেশে মজুরি বৃদ্ধি আন্দোলনে গার্মেন্টস কর্মী নিহত হওয়ার বিষয়ে আমেরিকা কোনো পদক্ষেপ নেবে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার বলেন, ‌‌‘আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত শ্রম অধিকার রক্ষা ও এর প্রচারে বিশ্বজুড়ে সরকার, শ্রমিক, শ্রম সংস্থা, ট্রেড ইউনিয়ন ও সুশীল সমাজের সাথে কাজ করছে আমেরিকা।’

এর আগে, শ্রমিকের অধিকার লঙ্ঘনকারীরা নিষেধাজ্ঞার সম্মুখীন হতে পারে বলে সম্প্রতি জানিয়েছিলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন।

এ প্রসঙ্গে ম্যাথু মিলার বলেন, ‘মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন গত সপ্তাহে শ্রম ইস্যুতে যে উদ্যোগ ঘোষণা করেছেন তাতে বিশ্বব্যাপী শ্রমিকদের সুরক্ষা ও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত শ্রম অধিকার প্রতিষ্ঠায় সরকার, শ্রমিক, বেসরকারি খাত, নাগরিক সমাজ, শ্রমিক সংগঠন, ট্রেড ইউনিয়নের সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়ার কথা বলেছেন। আমেরিকা বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী এটি করছে।’

‘আগেই বলেছি, আমরা বাংলাদেশে ন্যূনতম মজুরির দাবিতে আন্দোলনরত শ্রমিকদের বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক সহিংসতা, শ্রমিক সংগঠনকে অপরাধ হিসেবে গণ্য করার, কর্মী ও ট্রেড ইউনিয়নকে চলমান হয়রানির নিন্দা জানাই।’– বলেন মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র।

এদিকে, বাংলাদেশে আরেকটি একতরফা নির্বাচন ঠেকাতে আমেরিকা কোনো পদক্ষেপ নেবে কি–না এমন প্রশ্নের জবাবে, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনে সরকার, বিরোধী দল, সুশীল সমাজকে একত্রে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে মিলার বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশে কোনো রাজনৈতিক দলের পক্ষে অবস্থান নেইনি। বাংলাদেশের জনগণ যা চায়, আমরাও সেটিই চাই। আর তা হচ্ছে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন। শান্তিপূর্ণভাবে যেন নির্বাচন হয়। আমরা সরকার, বিরোধী দল ও সুশীল সমাজসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত রেখে সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে কাজ করে যাবো।’

বাংলাদেশে শ্রমিকদের ওপর সহিংসতায় আমেরিকার উদ্বেগ

আপডেট : ০৬:১৮:০৬ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০২৩

বাংলাদেশে শ্রমিকদের ওপর সাম্প্রতিক সহিংসতার বিষয়ে নিন্দা ও উদ্বেগ জানিয়েছে আমেরিকা। গতকাল সোমবার মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এই তথ্য জানান মুখপাত্র ম্যাথু মিলার। এসময় শ্রমিক ও ট্রেড ইউনিয়নের ওপর চলমান দমন-পীড়ন নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেন তিনি।

বাংলাদেশে মজুরি বৃদ্ধি আন্দোলনে গার্মেন্টস কর্মী নিহত হওয়ার বিষয়ে আমেরিকা কোনো পদক্ষেপ নেবে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র ম্যাথু মিলার বলেন, ‌‌‘আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত শ্রম অধিকার রক্ষা ও এর প্রচারে বিশ্বজুড়ে সরকার, শ্রমিক, শ্রম সংস্থা, ট্রেড ইউনিয়ন ও সুশীল সমাজের সাথে কাজ করছে আমেরিকা।’

এর আগে, শ্রমিকের অধিকার লঙ্ঘনকারীরা নিষেধাজ্ঞার সম্মুখীন হতে পারে বলে সম্প্রতি জানিয়েছিলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন।

এ প্রসঙ্গে ম্যাথু মিলার বলেন, ‘মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন গত সপ্তাহে শ্রম ইস্যুতে যে উদ্যোগ ঘোষণা করেছেন তাতে বিশ্বব্যাপী শ্রমিকদের সুরক্ষা ও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত শ্রম অধিকার প্রতিষ্ঠায় সরকার, শ্রমিক, বেসরকারি খাত, নাগরিক সমাজ, শ্রমিক সংগঠন, ট্রেড ইউনিয়নের সঙ্গে সম্পৃক্ত হওয়ার কথা বলেছেন। আমেরিকা বাংলাদেশসহ বিশ্বব্যাপী এটি করছে।’

‘আগেই বলেছি, আমরা বাংলাদেশে ন্যূনতম মজুরির দাবিতে আন্দোলনরত শ্রমিকদের বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক সহিংসতা, শ্রমিক সংগঠনকে অপরাধ হিসেবে গণ্য করার, কর্মী ও ট্রেড ইউনিয়নকে চলমান হয়রানির নিন্দা জানাই।’– বলেন মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের মুখপাত্র।

এদিকে, বাংলাদেশে আরেকটি একতরফা নির্বাচন ঠেকাতে আমেরিকা কোনো পদক্ষেপ নেবে কি–না এমন প্রশ্নের জবাবে, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন আয়োজনে সরকার, বিরোধী দল, সুশীল সমাজকে একত্রে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে মিলার বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশে কোনো রাজনৈতিক দলের পক্ষে অবস্থান নেইনি। বাংলাদেশের জনগণ যা চায়, আমরাও সেটিই চাই। আর তা হচ্ছে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন। শান্তিপূর্ণভাবে যেন নির্বাচন হয়। আমরা সরকার, বিরোধী দল ও সুশীল সমাজসহ সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে যোগাযোগ অব্যাহত রেখে সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে কাজ করে যাবো।’