ঢাকা ০৮:০৬ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी
ব্রেকিং নিউজ ::
রমাজান মাস উপলক্ষে আগামী ১২ই মার্চ থেকে ৭১ নিউজ বিডির হোম পেজে লাইভ টিভি চালু হবে। ৭১ নিউজ টিভিতে সাহরি এবং ইফতারের আগে লাইভ ইসলামী অনুষ্ঠান ও আযান সম্প্রচার করা হবে।

নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ০৪:০১:৫০ অপরাহ্ন, রবিবার, ৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
  • / ৩৫৩ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

অনূর্ধ্ব-১৯ নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। রোববার (০৪ ফেব্রুয়ারি) শক্তিশালী ভারতকে ১-০ গোলে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে ফাইনালে উঠে সাইফুল বারী টিটুর দল। ৩ পয়েন্ট নিয়ে অপেক্ষায় রইলো ভারত। তাদেরকে ফাইনাল খেলতে হলে নিজেদের শেষ ম্যাচে নেপালকে হারাতে হবে।

নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলায় গোলশূন্য ড্র ছিল। ইনজুরি সময়ের প্রথম মিনিটেই কেঁপে উঠল কমলাপুর স্টেডিয়ামের গ্যালারি। শেষ বেলায় ভারতের জালে বাংলাদেশের গোল উৎসব। সাগরিকার একমাত্র গোলে ভারতকে হারিয়ে সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ।

চার দলের টুর্নামেন্ট চার দলই দুটি করে ম্যাচ খেলেছে। দুই ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ ৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে। শেষ ম্যাচে ভুটানের বিপক্ষে হারলেও সমস্যা নেই বাংলাদেশের। নেপাল ও ভারতের মধ্যকার ম্যাচের জয়ী দল হবে আরেক ফাইনালিস্ট। বাংলাদেশের আজকের জয়ে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় হয়েছে ভুটানের।

আজ শুরু থেকেই ম্যাচের গতিবিধি ছিল ড্রয়ের। এই ম্যাচ ড্র হলে বাংলাদেশকে ফাইনালের জন্য অপেক্ষা করতে হতো। সেই অপেক্ষায় রাখেননি সাগরিকা। ইনজুরি সময়ে অধিনায়ক আফিদা খন্দকারের বাড়ানো বলে সাগরিকা দারুণভাবে বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে আগুয়ান গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন।

ম্যাচের শুরু থেকেই দুই দলের লড়াই হয় হাড্ডাহাড্ডি। দুই দল গোল করার সুযোগ পেলেও কেউই সেটি কাজে লাগাতে পারেনি। যার ফলে প্রথমার্ধ শেষ হয় গোলশূন্যভাবে। ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধেও চলে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। তবে সেখানেও কোনো দলই গোলের দেখা পায়নি। তাতে নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলা শেষ হয় গোলশূন্যভাবে।

ম্যাচের যোগ করা সময়ে (৯০+২) নিজেদের অর্ধ থেকে সতীর্থের বাড়িয়ে দেওয়া লম্বা পাস পান সাগরিকা। বল পেয়েই দ্রুতবেগে ছুটে যান ভারতের ডি বক্সের দিকে। ভারতের গোলরক্ষক আনিকাকে পরাস্ত করে নিচু প্লেসিং শটে কাছের পোস্ট দিয়ে বল জালে জড়ান সাগরিকা। উল্লাসে মেতে ওঠে গোটা স্টেডিয়াম।

সাগরিকা টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচেরও জয়ের নায়ক ছিলেন। নেপালের বিপক্ষে ৩ গোলের মধ্যে ২ গোল তার। স্কোরলাইন ২-১ হলে তখন সাগরিকার গোলে বাংলাদেশের জয় নিশ্চিত হয়। টানা দুই ম্যাচ জয়ের নায়ক এই নারী ফুটবলার।

লিগপর্বের শেষ ম্যাচে ৬ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার বিকেলে নেপালের মুখোমুখি হবে ভারত। ফাইনালে যেতে হলে এই ম্যাচ জিততেই হবে তাদের। আর একইদিন রাতে নিয়মরক্ষার ম্যাচে ভুটানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ভুটানের বিপক্ষে সেই ম্যাচ শুধু নিয়মরক্ষার। টুর্নামেন্টের ফাইনাল ৮ ফেব্রুয়ারি।

নিউজটি শেয়ার করুন

নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে বাংলাদেশ

আপডেট সময় : ০৪:০১:৫০ অপরাহ্ন, রবিবার, ৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

অনূর্ধ্ব-১৯ নারী সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ। রোববার (০৪ ফেব্রুয়ারি) শক্তিশালী ভারতকে ১-০ গোলে হারিয়ে প্রথম দল হিসেবে ফাইনালে উঠে সাইফুল বারী টিটুর দল। ৩ পয়েন্ট নিয়ে অপেক্ষায় রইলো ভারত। তাদেরকে ফাইনাল খেলতে হলে নিজেদের শেষ ম্যাচে নেপালকে হারাতে হবে।

নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলায় গোলশূন্য ড্র ছিল। ইনজুরি সময়ের প্রথম মিনিটেই কেঁপে উঠল কমলাপুর স্টেডিয়ামের গ্যালারি। শেষ বেলায় ভারতের জালে বাংলাদেশের গোল উৎসব। সাগরিকার একমাত্র গোলে ভারতকে হারিয়ে সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ।

চার দলের টুর্নামেন্ট চার দলই দুটি করে ম্যাচ খেলেছে। দুই ম্যাচ শেষে বাংলাদেশ ৬ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের শীর্ষে। শেষ ম্যাচে ভুটানের বিপক্ষে হারলেও সমস্যা নেই বাংলাদেশের। নেপাল ও ভারতের মধ্যকার ম্যাচের জয়ী দল হবে আরেক ফাইনালিস্ট। বাংলাদেশের আজকের জয়ে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় হয়েছে ভুটানের।

আজ শুরু থেকেই ম্যাচের গতিবিধি ছিল ড্রয়ের। এই ম্যাচ ড্র হলে বাংলাদেশকে ফাইনালের জন্য অপেক্ষা করতে হতো। সেই অপেক্ষায় রাখেননি সাগরিকা। ইনজুরি সময়ে অধিনায়ক আফিদা খন্দকারের বাড়ানো বলে সাগরিকা দারুণভাবে বলের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে আগুয়ান গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন।

ম্যাচের শুরু থেকেই দুই দলের লড়াই হয় হাড্ডাহাড্ডি। দুই দল গোল করার সুযোগ পেলেও কেউই সেটি কাজে লাগাতে পারেনি। যার ফলে প্রথমার্ধ শেষ হয় গোলশূন্যভাবে। ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধেও চলে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। তবে সেখানেও কোনো দলই গোলের দেখা পায়নি। তাতে নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলা শেষ হয় গোলশূন্যভাবে।

ম্যাচের যোগ করা সময়ে (৯০+২) নিজেদের অর্ধ থেকে সতীর্থের বাড়িয়ে দেওয়া লম্বা পাস পান সাগরিকা। বল পেয়েই দ্রুতবেগে ছুটে যান ভারতের ডি বক্সের দিকে। ভারতের গোলরক্ষক আনিকাকে পরাস্ত করে নিচু প্লেসিং শটে কাছের পোস্ট দিয়ে বল জালে জড়ান সাগরিকা। উল্লাসে মেতে ওঠে গোটা স্টেডিয়াম।

সাগরিকা টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচেরও জয়ের নায়ক ছিলেন। নেপালের বিপক্ষে ৩ গোলের মধ্যে ২ গোল তার। স্কোরলাইন ২-১ হলে তখন সাগরিকার গোলে বাংলাদেশের জয় নিশ্চিত হয়। টানা দুই ম্যাচ জয়ের নায়ক এই নারী ফুটবলার।

লিগপর্বের শেষ ম্যাচে ৬ ফেব্রুয়ারি মঙ্গলবার বিকেলে নেপালের মুখোমুখি হবে ভারত। ফাইনালে যেতে হলে এই ম্যাচ জিততেই হবে তাদের। আর একইদিন রাতে নিয়মরক্ষার ম্যাচে ভুটানের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। ভুটানের বিপক্ষে সেই ম্যাচ শুধু নিয়মরক্ষার। টুর্নামেন্টের ফাইনাল ৮ ফেব্রুয়ারি।