ঢাকা ০৯:৩৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

বাংলাদেশ থেকে ১০ হাজার কর্মী নেবে দ. কোরিয়া

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় : ১২:৫৬:৩৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩১ মার্চ ২০২৪
  • / ৩৬২ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

সরকারি রিক্রুটিং এজেন্সি-বোয়েসেলের মাধ্যমে চলতি বছর ১০ হাজার বাংলাদেশি কর্মী নেবে দক্ষিণ কোরিয়া। প্রথমবারের মতো দেশটির মৎস্য, উৎপাদন ও জাহাজ নির্মাণ শিল্পে কাজের সুযোগ পাচ্ছেন বাংলাদেশিরা। শনিবার (৩০ মার্চ) এ তথ্য জানিয়েছে দেশের একমাত্র সরকারি রিক্রুটিং এজেন্সি-বোয়েসেল।

জানা গেছে, ২০২৩ সালে বাংলাদেশি কর্মীদের জন্য ৭ হাজার কোটা নির্ধারিত থাকলেও দক্ষ কর্মীর অভাবে ৫ হাজার কর্মী দেশটিতে যায়। ফাঁকা থেকেছে ২ হাজার। এ বছর কোটা বেড়ে ১০ হাজারে দাঁড়িয়েছে। প্রথমবারের মতো দেশটির মৎস্য, উৎপাদন ও জাহাজ নির্মাণ শিল্পে কাজের সুযোগ পাচ্ছেন বাংলাদেশিরা। আর দেশটিতে যেতে বাংলাদেশি কর্মীদের প্রথমে কোরিয়ান ভাষা শিখে পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হতে হয়। এরপর কাঙ্ক্ষিত কাজের দক্ষতা অর্জন করে বোয়েসেলে আবেদনের মাধ্যমে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেই মিলবে কাজের সুযোগ।

এ বিষয়ে দক্ষিণ কোরিয়ায় যেতে সবধাপে উত্তীর্ণ হারুণ অর রশিদ বলেন, সর্বপ্রথম পরীক্ষায় ভালো নম্বর পেতে হয়, এরপর রোস্টারভুক্ত হতে হয়। দেশটিতে যেতে পারলে মাসিক ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা বেতন পাওয়া যাবে।

সরকারি রিক্রুটিং এজেন্সি-বোয়েসেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন বলেন, দক্ষিণ কোরিয়ায় কোটা ধরে রাখার দায়িত্ব কর্মীদের। কারণ, কোনো কর্মী যদি ১ বছর এক কোম্পানিতে চাকরির পর মালিকের অনুমতি নিয়ে অন্য কোম্পানিতে যায়, তাহলে সেই প্রতিষ্ঠান লোক নেবে। কিন্তু একজন কর্মী যদি কোম্পানির বিরুদ্ধে অভিযোগ বা মামলা করে কর্মস্থল ত্যাগ করে তাহলে সেই কোম্পানি আর লোক নেবে না।

এদিকে প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী বিদেশে কর্মী পাঠানোয় দক্ষতার ওপর জোর দিয়েছেন। তিনি বলেন, আমরা দক্ষ শ্রমিক গড়ে তুলতে কাজ করছি। যেসব প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে এগুলো সুসংগঠিত করে গতি আরও বাড়ানো হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

বাংলাদেশ থেকে ১০ হাজার কর্মী নেবে দ. কোরিয়া

আপডেট সময় : ১২:৫৬:৩৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩১ মার্চ ২০২৪

সরকারি রিক্রুটিং এজেন্সি-বোয়েসেলের মাধ্যমে চলতি বছর ১০ হাজার বাংলাদেশি কর্মী নেবে দক্ষিণ কোরিয়া। প্রথমবারের মতো দেশটির মৎস্য, উৎপাদন ও জাহাজ নির্মাণ শিল্পে কাজের সুযোগ পাচ্ছেন বাংলাদেশিরা। শনিবার (৩০ মার্চ) এ তথ্য জানিয়েছে দেশের একমাত্র সরকারি রিক্রুটিং এজেন্সি-বোয়েসেল।

জানা গেছে, ২০২৩ সালে বাংলাদেশি কর্মীদের জন্য ৭ হাজার কোটা নির্ধারিত থাকলেও দক্ষ কর্মীর অভাবে ৫ হাজার কর্মী দেশটিতে যায়। ফাঁকা থেকেছে ২ হাজার। এ বছর কোটা বেড়ে ১০ হাজারে দাঁড়িয়েছে। প্রথমবারের মতো দেশটির মৎস্য, উৎপাদন ও জাহাজ নির্মাণ শিল্পে কাজের সুযোগ পাচ্ছেন বাংলাদেশিরা। আর দেশটিতে যেতে বাংলাদেশি কর্মীদের প্রথমে কোরিয়ান ভাষা শিখে পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হতে হয়। এরপর কাঙ্ক্ষিত কাজের দক্ষতা অর্জন করে বোয়েসেলে আবেদনের মাধ্যমে পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেই মিলবে কাজের সুযোগ।

এ বিষয়ে দক্ষিণ কোরিয়ায় যেতে সবধাপে উত্তীর্ণ হারুণ অর রশিদ বলেন, সর্বপ্রথম পরীক্ষায় ভালো নম্বর পেতে হয়, এরপর রোস্টারভুক্ত হতে হয়। দেশটিতে যেতে পারলে মাসিক ১ লাখ ৮০ হাজার টাকা বেতন পাওয়া যাবে।

সরকারি রিক্রুটিং এজেন্সি-বোয়েসেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ড. মল্লিক আনোয়ার হোসেন বলেন, দক্ষিণ কোরিয়ায় কোটা ধরে রাখার দায়িত্ব কর্মীদের। কারণ, কোনো কর্মী যদি ১ বছর এক কোম্পানিতে চাকরির পর মালিকের অনুমতি নিয়ে অন্য কোম্পানিতে যায়, তাহলে সেই প্রতিষ্ঠান লোক নেবে। কিন্তু একজন কর্মী যদি কোম্পানির বিরুদ্ধে অভিযোগ বা মামলা করে কর্মস্থল ত্যাগ করে তাহলে সেই কোম্পানি আর লোক নেবে না।

এদিকে প্রবাসী কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী শফিকুর রহমান চৌধুরী বিদেশে কর্মী পাঠানোয় দক্ষতার ওপর জোর দিয়েছেন। তিনি বলেন, আমরা দক্ষ শ্রমিক গড়ে তুলতে কাজ করছি। যেসব প্রতিষ্ঠানে প্রশিক্ষণ দেওয়া হচ্ছে এগুলো সুসংগঠিত করে গতি আরও বাড়ানো হবে।