ঢাকা ১০:৪০ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীদের দাবির প্রতি কর্নেল অলির সমর্থন

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০৩:৫৮:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ এপ্রিল ২০২৪
  • / ৩৫২ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) প্রেসিডেন্ট ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীর বিক্রম বলেছেন, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মেধাবী ছাত্ররা দেশের অন্যতম সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে রাজনীতি মুক্ত রাখতে চায়। তারা জ্ঞানের চর্চায় বিশ্বাসী, তারা ভবিষ্যতের জন্য সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে চায়। জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে সব দেশপ্রেমিক অভিভাবক, শিক্ষক এবং রাজনীতিবিদদের তাদের এই উদ্যোগকে সমর্থন দেওয়া উচিত।

আজ সোমবার (১ এপ্রিল) ‍বুয়েট শিক্ষার্থীদের প্রতি সমর্থন জানিয়ে এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন তিনি।

কর্নেল অলি বলেন, ‘বুয়েটের মেধাবী ছাত্রদের দাবির প্রতি লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপির পক্ষ থেকে আমাদের পূর্ণ সমর্থন থাকবে, আমরা তাদের পাশে আছি। কারণ আমরা গুন্ডারাজের অবসান ঘটিয়ে মেধা এবং সৃজনশীলতাকে প্রাধান্য দিয়ে দেশকে এগিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে বদ্ধপরিকর।’

এলডিপির এই নেতা বলেন, ‘দেশের হাই স্কুল, কলেজ এবং বিভিন্ন ধরনের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো জ্ঞানচর্চা এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে যুগোপযোগী করে তোলার উৎকৃষ্ট স্থান। নিঃসন্দেহে পৃথিবীর অন্যান্য দেশের তুলনায় আমরা অনেক পেছনে পড়ে আছি। এমনকি পার্শ্ববর্তী ভারত আমাদের থেকে বহুগুণে এগিয়ে আছে। মালয়েশিয়ার মতো দেশও এগিয়ে আছে। আমাদের পেছনে পড়ার মূল কারণ হচ্ছে, যারা দেশ পরিচালনা করে, তাদের দূরদর্শিতা, দেশপ্রেম এবং জ্ঞানের অভাব। বিভিন্ন দিক থেকে আমরা বহু পেছনে আছি। তাই দেশের বৃহত্তর স্বার্থে শিক্ষাব্যবস্থাকে যুগোপযোগী করতে হবে। পৃথিবীর কোনো জায়গায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে দলীয় রাজনীতি হয় না।’

নিউজটি শেয়ার করুন

বুয়েটের সাধারণ শিক্ষার্থীদের দাবির প্রতি কর্নেল অলির সমর্থন

আপডেট সময় : ০৩:৫৮:২৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ১ এপ্রিল ২০২৪

লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) প্রেসিডেন্ট ড. কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীর বিক্রম বলেছেন, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মেধাবী ছাত্ররা দেশের অন্যতম সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে রাজনীতি মুক্ত রাখতে চায়। তারা জ্ঞানের চর্চায় বিশ্বাসী, তারা ভবিষ্যতের জন্য সুনাগরিক হিসেবে গড়ে উঠতে চায়। জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে সব দেশপ্রেমিক অভিভাবক, শিক্ষক এবং রাজনীতিবিদদের তাদের এই উদ্যোগকে সমর্থন দেওয়া উচিত।

আজ সোমবার (১ এপ্রিল) ‍বুয়েট শিক্ষার্থীদের প্রতি সমর্থন জানিয়ে এক বিবৃতিতে এসব কথা বলেন তিনি।

কর্নেল অলি বলেন, ‘বুয়েটের মেধাবী ছাত্রদের দাবির প্রতি লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এলডিপির পক্ষ থেকে আমাদের পূর্ণ সমর্থন থাকবে, আমরা তাদের পাশে আছি। কারণ আমরা গুন্ডারাজের অবসান ঘটিয়ে মেধা এবং সৃজনশীলতাকে প্রাধান্য দিয়ে দেশকে এগিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে বদ্ধপরিকর।’

এলডিপির এই নেতা বলেন, ‘দেশের হাই স্কুল, কলেজ এবং বিভিন্ন ধরনের বিশ্ববিদ্যালয়গুলো জ্ঞানচর্চা এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে যুগোপযোগী করে তোলার উৎকৃষ্ট স্থান। নিঃসন্দেহে পৃথিবীর অন্যান্য দেশের তুলনায় আমরা অনেক পেছনে পড়ে আছি। এমনকি পার্শ্ববর্তী ভারত আমাদের থেকে বহুগুণে এগিয়ে আছে। মালয়েশিয়ার মতো দেশও এগিয়ে আছে। আমাদের পেছনে পড়ার মূল কারণ হচ্ছে, যারা দেশ পরিচালনা করে, তাদের দূরদর্শিতা, দেশপ্রেম এবং জ্ঞানের অভাব। বিভিন্ন দিক থেকে আমরা বহু পেছনে আছি। তাই দেশের বৃহত্তর স্বার্থে শিক্ষাব্যবস্থাকে যুগোপযোগী করতে হবে। পৃথিবীর কোনো জায়গায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে দলীয় রাজনীতি হয় না।’