ঢাকা ০৮:০৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
বাংলা বাংলা English English हिन्दी हिन्दी

হজযাত্রা শুরু ৯ মে, প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • আপডেট সময় : ০১:২৭:৩৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ মে ২০২৪
  • / ৩৯৫ বার পড়া হয়েছে
৭১ নিউজ বিডির সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

৯ মে থেকে শুরু হচ্ছে চলতি বছরের হজযাত্রা। সেই লক্ষ্যে প্রস্তুতি চলছে হজ ক্যাম্পের। এ বছর সুযোগ সুবিধা বাড়ানোর পাশাপাশি জোর দেয়া হয়েছে ডিজিটাল সেবাকে। অন্যদিকে প্রায় ৪৩ হাজার যাত্রী পরিবহনের জন্য প্রস্তুত বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। হজযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে মধ্যপ্রাচ্যের ফ্লাইটও সমন্বয় করেছে তারা।

কেউ ব্যস্ত ব্যানার বিলবোর্ড লাগাতে, কারো ব্যস্ততা ঘষা মাজায়। শেষ মুহূর্তেও ইমিগ্রেশন কাউন্টার গুলোতে চলছে শোভাবর্ধনের কাজ। আশকোনা হজ ক্যাম্পের এই কর্মযজ্ঞই জানান দিচ্ছে হজের মৌসুম এসেছে।

হজযাত্রীদের থাকার জন্য ডরমেটরিগুলোও প্রায় প্রস্তুত। এবার ২৪ টি ডরমেটরিতে একসাথে ২৪০০ যাত্রী রাত্রিযাপন করতে পারবে। যার মধ্যে প্রথম তলা বাদে প্রতিটি তলাতেই ১ টি করে ডরমেটরি নারী যাত্রীদের বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। দিনে ৫ হাজার হজযাত্রীকে সেবার দেবার লক্ষ্য ক্যাম্প কতৃপক্ষের।

এবারও রোড টু মক্কা চুক্তির আদলে বাংলাদেশ অংশের ইমিগ্রেশন করা যাবে হজ ক্যাম্পেই। হজযাত্রী পরিবহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স, সৌদিয়া এয়ারলাইন্স ও ফ্লাইনাস আলাদা আলাদা করে তৈরি করেছে চেক ইন কাউন্টার, লাগেজ বেল্ট। প্রস্তত ইমিগ্রেশন কাউন্টারও।

দোতালার ব্যাংক, বুথ গুলোরও প্রস্তুতি চলছে জোরেশোরেই। তীব্র গরম মোকাবিলায় পুরো হজক্যাম্পেই লাগানো হয়েছে এসি। লিফটগুলোরও সংস্কারের কাজ চলছে।

আশকোনা হজ ক্যাম্পের পরিচালক মুহম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, ‘এবারের হজযাত্রা সহজ করতে ডিজিটাল মাধ্যমকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। ই -হজ পোর্টালের মাধ্যমেই হজযাত্রীরা যাবতীয় তথ্য জানতে পারবেন। যেকেউ ই-হজ থেকে যে রিপোর্ট পাবে সেটায় ফাইনাল রির্পোট।’

গেল বছরে মশার অত্যাচারে অতিষ্ঠ ছিলেন হজযাত্রীরা। তাই এ বছর মশা নিয়ন্ত্রণে বাড়তি সতর্ক হজ ক্যাম্প পরিচালক। বলছেন, ক্যাম্পের আশপাশে চালানো হচ্ছে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান।

পরিচালক আরও বলেন, ‘একমাসে আগেও এখানে বসা কষ্টকর ছিল। এখন এখানে মশা নেই বললেই চলে। মশা নিয়ন্ত্রণে সবধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

চলতি বছর নিবন্ধনকারী ৮৩ হাজার ২০৯ জন হজযাত্রী পরিবহনে প্রি হজ ফ্লাইট পরিচালিত হবে মোট ২২৮ টি। যার মধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পরিবহন করবে অর্ধেক আর বাকি অর্ধেক করবে সৌদিয়া ও ফ্লাইনাস মিলে।

প্রি হজ ফ্লাইট শুরু হবে ৯ মে। প্রথমদিনেই চলবে ৭ টি ফ্লাইট। আর ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে ২০ জুন। বিমান প্রি হজের জন্য ১১৮ ও পোস্ট হজের জন্য ১২৫ টি ফ্লাইট পরিচালনা করবে। ইতোমধ্যেই হজ ফ্লাইটের যাবতীয় প্রস্তুতি শেষ করেছে তারা। অত্যাধুনিক বোয়িং ৭৭৭ উড়োজাহাজ দিয়ে চালবে হজ ফ্লাইট। হজযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে মধ্যপ্রাচ্যের ফ্লাইট সমন্বয় করেছে বিমান।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের এমডি শফিউল আজিম বলেন, ‘পবিত্র হজ যারা পালন করবেন তাদের জন্য আমাদের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে রয়েছে। শুধুমাত্র এখন আমরা অপেক্ষা করছি ৯ তারিখের সকাল ৭ টা ২০ মিনিটের ফ্লাইটের।’

এবারও ঢাকার পাশাপাশি চট্টগ্রাম ও সিলেট থেকে হজ ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান।

নিউজটি শেয়ার করুন

হজযাত্রা শুরু ৯ মে, প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে

আপডেট সময় : ০১:২৭:৩৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ মে ২০২৪

৯ মে থেকে শুরু হচ্ছে চলতি বছরের হজযাত্রা। সেই লক্ষ্যে প্রস্তুতি চলছে হজ ক্যাম্পের। এ বছর সুযোগ সুবিধা বাড়ানোর পাশাপাশি জোর দেয়া হয়েছে ডিজিটাল সেবাকে। অন্যদিকে প্রায় ৪৩ হাজার যাত্রী পরিবহনের জন্য প্রস্তুত বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স। হজযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে মধ্যপ্রাচ্যের ফ্লাইটও সমন্বয় করেছে তারা।

কেউ ব্যস্ত ব্যানার বিলবোর্ড লাগাতে, কারো ব্যস্ততা ঘষা মাজায়। শেষ মুহূর্তেও ইমিগ্রেশন কাউন্টার গুলোতে চলছে শোভাবর্ধনের কাজ। আশকোনা হজ ক্যাম্পের এই কর্মযজ্ঞই জানান দিচ্ছে হজের মৌসুম এসেছে।

হজযাত্রীদের থাকার জন্য ডরমেটরিগুলোও প্রায় প্রস্তুত। এবার ২৪ টি ডরমেটরিতে একসাথে ২৪০০ যাত্রী রাত্রিযাপন করতে পারবে। যার মধ্যে প্রথম তলা বাদে প্রতিটি তলাতেই ১ টি করে ডরমেটরি নারী যাত্রীদের বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। দিনে ৫ হাজার হজযাত্রীকে সেবার দেবার লক্ষ্য ক্যাম্প কতৃপক্ষের।

এবারও রোড টু মক্কা চুক্তির আদলে বাংলাদেশ অংশের ইমিগ্রেশন করা যাবে হজ ক্যাম্পেই। হজযাত্রী পরিবহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স, সৌদিয়া এয়ারলাইন্স ও ফ্লাইনাস আলাদা আলাদা করে তৈরি করেছে চেক ইন কাউন্টার, লাগেজ বেল্ট। প্রস্তত ইমিগ্রেশন কাউন্টারও।

দোতালার ব্যাংক, বুথ গুলোরও প্রস্তুতি চলছে জোরেশোরেই। তীব্র গরম মোকাবিলায় পুরো হজক্যাম্পেই লাগানো হয়েছে এসি। লিফটগুলোরও সংস্কারের কাজ চলছে।

আশকোনা হজ ক্যাম্পের পরিচালক মুহম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, ‘এবারের হজযাত্রা সহজ করতে ডিজিটাল মাধ্যমকে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়া হয়েছে। ই -হজ পোর্টালের মাধ্যমেই হজযাত্রীরা যাবতীয় তথ্য জানতে পারবেন। যেকেউ ই-হজ থেকে যে রিপোর্ট পাবে সেটায় ফাইনাল রির্পোট।’

গেল বছরে মশার অত্যাচারে অতিষ্ঠ ছিলেন হজযাত্রীরা। তাই এ বছর মশা নিয়ন্ত্রণে বাড়তি সতর্ক হজ ক্যাম্প পরিচালক। বলছেন, ক্যাম্পের আশপাশে চালানো হচ্ছে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযান।

পরিচালক আরও বলেন, ‘একমাসে আগেও এখানে বসা কষ্টকর ছিল। এখন এখানে মশা নেই বললেই চলে। মশা নিয়ন্ত্রণে সবধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।’

চলতি বছর নিবন্ধনকারী ৮৩ হাজার ২০৯ জন হজযাত্রী পরিবহনে প্রি হজ ফ্লাইট পরিচালিত হবে মোট ২২৮ টি। যার মধ্যে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স পরিবহন করবে অর্ধেক আর বাকি অর্ধেক করবে সৌদিয়া ও ফ্লাইনাস মিলে।

প্রি হজ ফ্লাইট শুরু হবে ৯ মে। প্রথমদিনেই চলবে ৭ টি ফ্লাইট। আর ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে ২০ জুন। বিমান প্রি হজের জন্য ১১৮ ও পোস্ট হজের জন্য ১২৫ টি ফ্লাইট পরিচালনা করবে। ইতোমধ্যেই হজ ফ্লাইটের যাবতীয় প্রস্তুতি শেষ করেছে তারা। অত্যাধুনিক বোয়িং ৭৭৭ উড়োজাহাজ দিয়ে চালবে হজ ফ্লাইট। হজযাত্রা নির্বিঘ্ন করতে মধ্যপ্রাচ্যের ফ্লাইট সমন্বয় করেছে বিমান।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের এমডি শফিউল আজিম বলেন, ‘পবিত্র হজ যারা পালন করবেন তাদের জন্য আমাদের প্রস্তুতি শেষ পর্যায়ে রয়েছে। শুধুমাত্র এখন আমরা অপেক্ষা করছি ৯ তারিখের সকাল ৭ টা ২০ মিনিটের ফ্লাইটের।’

এবারও ঢাকার পাশাপাশি চট্টগ্রাম ও সিলেট থেকে হজ ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান।